সাড়ে তিন মাস পর ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানি শুরু

ভারত রপ্তানিতে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করায় শনিবার বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে চাঁপাইনবাবগঞ্জ সোনামসজিদ স্থলবন্দর দিয়ে পেঁয়াজ আমদানি শুরু হয়েছে। অভ্যন্তরীণ বাজারে পেঁয়াজের সংকট ও মূল্যবৃদ্ধির অজুহাত দেখিয়ে রপ্তানিতে নিষেধাজ্ঞা আরোপের কারণে প্রায় সাড়ে তিন মাস বন্ধ থাকার পর নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করেছে ভারত।

সোনামসজিদ সিএন্ডএফ এজেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি আব্দুল আওয়াল ঢাকা টাইমসকে জানিয়েছেন, সোনামসজিদ স্থলবন্দরের আমদানিকারকরা ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানির জন্য আইপি গ্রহণ ও এলসি খোলার প্রস্তুতি নিয়েছেন। ইতিমধেই কয়েকজন আমদানিকারক পেঁয়াজ আমদানির জন্য আইপি নেয়া শুরু করেছেন।

সোনামসজিদ স্থল শুল্ক স্টেশনের সহকারী কমিশনার মমিনুল ইসলাম ঢাকা টাইমসকে জানান, বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে নতুন এলসিকৃত চার গাড়ি পেঁয়াজ বন্দরে প্রবেশ করেছে। যার পরিমাণ ৬০ মেট্রিকটন। পুরনো এলসি বাতিল হওয়ায় নতুন এলসিতে পেঁয়াজ আমদানি হচ্ছে বলে জানান তিনি।

দিনাজপুরের হিলি স্থলবন্দর দিয়েও পেঁয়াজের আমদানি শুরু হয়েছে। শনিবার বিকাল সাড়ে তিনটা ভারত থেকে পেঁয়াজ বোঝাই ট্রাক বন্দরে ঢোকে।

এদিকে, ভারতীয় পেঁয়াজ আমদানির খবরে কয়েক দিনের ব্যবধানে স্থানীয় বাজারে দেশি পেঁয়াজের দাম কমেছে কেজিতে আট থেকে ১০ টাকা। যা গত সপ্তাহে ছিল ৩০ থেকে ৩৫ টাকা।

অভ্যন্তরীণ বাজারে পেঁয়াজের সংকট ও মূল্যবৃদ্ধির অজুহাত দেখিয়ে গত ১৪ সেপ্টেম্বর বাংলাদেশে পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ করে দেয় ভারত। তাদের উৎপাদন বাড়ার কারণে গত ২৮ ডিসেম্বর ভারত সরকার পেঁয়াজ রপ্তানিতে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করে নেয়।