২ হাজার কোটি টাকার মামলায় আ’লীগ নেতা গ্রেফতার

দুই হাজার কোটি টাকা মানি লন্ডারিংয়ের অভিযোগে দায়ের করা মামলায় ফরিদপুর পৌরসভার ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ সভাপতি মো. জলিল শেখ (৪৮) গ্রেফতার হয়েছেন।

বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে ফরিদপুর শহরের লক্ষ্মীপুর এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করে কোতোয়ালি থানা পুলিশ।

মো. জলিল শেখ শহরের লক্ষ্মীপুর মহল্লার ডেকোরেশন ব্যবসায়ী মৃত মো. আলাউদ্দিন শেখের ছেলে। তিনি আগামী ১০ ডিসেম্বর ফরিদপুর পৌরসভা নির্বাচনে ১৭ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদে নির্বাচনের জন্য মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে ফরিদপুর কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোরশেদ আলম বলেন, মানি লন্ডারিং মামলায় পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি) ঢাকার চাহিদা অনুযায়ী ওই মামলার আসামি হিসেবে জলিলকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

ওসি জানান, বৃহস্পতিবার বিকালে জলিলকে জেলার চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়। পরে ঢাকার সিআইডি জলিল শেখকে ফরিদপুর জেল থেকে তাদের হেফাজতে নেবে বলে জানান তিনি।

উল্লেখ্য, চলতি বছরের ২৬ জুন সিআইডির পরিদর্শক এসএম মিরাজ আল মাহমুদ ঢাকার কাফরুল থানায় মানি লন্ডারিংয়ের অভিযোগ এনে সাজ্জাদ হোসেন বরকত ও ইমতিয়াজ হাসান রুবেলের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। এ মামলায় ওই দুই ভায়ের বিরুদ্ধে দুই হাজার কোটি টাকার সম্পদ অবৈধ উপায়ে উপার্জন ও পাচারের অভিযোগ আনা হয়।
২০১২ সালের মানি লন্ডারিং প্রতিরোধ আইন সংশোধনী ২০১৫ এর ৪(২) ধারায় এ মামলাটি দায়ের করা হয়। এ মামলাটি তদন্ত করছেন ঢাকা মেট্রোপলিটন পশ্চিম সিআইডির সহকারী পুলিশ সুপার উত্তম কুমার বিশ্বাস।

বর্তমানে ওই দুই ভাই কারাগারে আছেন। তাদের দেয়া তথ্যের ভিত্তিতেই গ্রেফতার হন আওয়ামী লীগ নেতা জলিল।