সাকিব-মাহমুদউল্লাহদের সহজেই হারিয়ে দিলো শান্ত-আশরাফুলের রাজশাহী

বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপে জয়ের ধারা অব্যাহত রেখেছে মিনিস্টার গ্রুপ রাজশাহী। নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে বৃহস্পতিবার শক্তিশালী জেমকন খুলনাকে ৬ উইকেটে হারিয়েছে নাজমুল শান্তর দল। এর আগে, গত ২৪ নভেম্বর টুর্নামেন্টের উদ্বোধনী ম্যাচে বেক্সিমকো ঢাকাকে ২ রানে হারিয়েছিল রাজশাহী। অন্যদিকে, মঙ্গলবার আরিফুল ইসলামের শেষ ওভারে তোলা ব্যাটিং ঝড়ে ফরচুন বরিশালের বিপক্ষে ৪ উইকেটে জিতলেও এবার পরাজয়ের তিক্ত স্বাদ পেলেন সাকিব-মাহমুদউল্লাহরা।

বৃহস্পতিবার মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত দিনের প্রথম ম্যাচে টস জিতে ব্যাট করতে নেমে বিপর্যয়ে পড়ে খুলনা। প্রথম ম্যাচের মতো এ ম্যাচেও শূন্য রানে আউট হয়েছেন ইমরুল কায়েস। সাকিব-মাহমুদউল্লাহরাও হাল ধরতে পারেননি। ৯ বলে দুই বাউন্ডারিতে ১২ রান তুলে মুকিদুল ইসলামের বলে ফরহাদ রেজার হাতে ধরা দেন সাকিব। ১৩ বলে ৭ রান করে প্যাভিলিয়ন ধরা মাহমুদউল্লাহও আরাফাত সানির সহজ শিকারে পরিণত হন। দলীয় ৫১ রানে ৫ উইকেট হারায় খুলনা। সেখান থেকে দলকে টেনে তুলেন আরিফুল, শামিম, শহিদুলরা। ৩১ বলে অপরাজিত ৪১ রানের ইনিংসে ৩টি ছক্কা ও ২টি চার মেরেছেন আগের ম্যাচের নায়ক আরিফুল। শামিম হোসেন ৩৫ ও ওপেনার এনামুল হক বিজয় ২৬ রান করেন।

রাজশাহীর পক্ষে দুটি উইকেট নিয়েছেন মুকিদুল ইসলাম। এছাড়া মেহেদি হাসান, এবাদত হোসেন ও আরাফাত সানি একটি করে উইকেট লাভ করেন।

মাঝারি মানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে সময়োপযোগী ব্যাটিং করেছেন রাজশাহীর অধিনায়ক নাজমুল হোসেন শান্ত। দলীয় ২৫ রানে ওপেনার আনিসুল ইসলাম ইমন ফিরে গেলেও রনি তালুকদারকে সাথে নিয়ে দ্রুত গতিতে রান তুলতে থাকেন শান্ত। ২০ বলে ২৬ রান করে দলীয় ৭২ রানে ফিরে যান রনি। তবে, ৩৪ বলে ৫৫ রান করে দলের জয়ের ভিত্তি গড়ে দিয়ে যান শান্ত। তার এই ইনিংসে আছে ৬টি চারের সাথে ৩টি ছক্কাও। এই টুর্নামেন্ট দিয়ে নিজেকের প্রমাণ করার চেষ্টায় থাকা মোহাম্মদ আশরাফুল ২২ বলে ২৫ রান করে অপরাজিত ছিলেন। ৭ বলে ১১ করে অপরাজিত থাকেন নুরুল হাসান সোহান। খুলনার বোলারদের মধ্যে রিশাদ হোসেন ২টি, শহীদুল ইসলাম ১টি ও আল-আমিন হোসেন ১টি করে উইকেট শিকার করেন।

প্রথম তিন ম্যাচ এই ধারণাই তৈরি করলো বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপের কোনো দলই শক্তিশালী কিংবা দুর্বল নয়। নিজেদের দিনে জয় তুলে নিতে পারে যেকোনো দলই।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

জেমকন খুলনা: ১৪৬/৬ (২০ ওভার)
বিজয় ২৬, ইমরুল ০, সাকিব ১২, রিয়াদ ৭, জহুরুল ১, আরিফুল ৪১*, শামীম ৩৫, শহীদুল ১৭*; ইবাদত ১/২৭, শেখ মেহেদী ১/২৩, মুকিদুল ২/৪৪, আরাফাত সানি ১/১৭, ফরহাদ রেজা ০/২৯, আনিসুল ০/৫।

মিনিস্টার গ্রুপ রাজশাহী: ১৪৭/৪ (২০ ওভার)

শান্ত ৫৫, আনিসুল ২, রনি ২৬, আশরাফুল ২৫*, ফজলে মাহমুদ ২৪, সোহান ১১*; সাকিব ০/২৭, শফিউল ০/২৪, আল-আমিন হোসেন ১/১৩, শহীদুল ১/২৭, মাহমুদউল্লাহ ০/১১, রিশাদ ২/৩৪, শামীম ০/৯)

ফল: মিনিস্টার গ্রুপ রাজশাহী ৬ উইকেটে জয়ী।