শরীরের উচ্চতা বাড়ানোর ৯ উপায়

লম্বা হতে কে না চায়? অনেকে মনে করেন যে লম্বা হওয়ার প্রক্রিয়াটি বংশগত। কিন্তু না, এর পুরোটা সত্য নয়। সঠিক জীবনযাপনে উচ্চতা কিছুটা হলেও বাড়ানো যায়। এখানে শরীরের উচ্চতা বাড়ানোর নয়টি উপায় উল্লেখ করা হলো।

পর্যাপ্ত পুষ্টি: ভালো ভারসাম্যপূর্ণ ডায়েটে শরীরের বিকাশসাধনের জন্য প্রয়োজনীয় পুষ্টির উপস্থিতি থাকবে, বিশেষ করে ক্যালসিয়াম ও ভিটামিন ডি। ক্যালসিয়াম ও ভিটামিন ডি হাড়-মাংসপেশি গঠনের জন্য দরকারি। স্বাস্থ্যকর ডায়েটে শাকসবজি, ফল, প্রোটিন ও কার্বোহাইড্রেটের সমাহার থাকবে। ডাইনিং টেবিলে বাদাম, দুধ, চর্বিহীন মাংস ও শাকসবজি থাকা চাই। প্রতিদিন তিন বেলার খাবারের মাঝে পুষ্টিকর স্ন্যাকস খেতে হবে।
রোদে হাঁটা: সরাসরি রোদে থাকলে শরীর প্রচুর ভিটামিন ডি পাবে। হাড়ের বিকাশসাধনের জন্য শরীরের ভিটামিন ডি প্রয়োজন হয়। কিন্তু বেশিক্ষণ রোদে থাকবেন না। ফর্সা ত্বকের লোকেরা ১৫ থেকে ৩০ মিনিট রোদে থাকতে পারেন। কিন্তু কালো ত্বকের লোকদের ভিটামিন ডি পেতে প্রায় এক ঘন্টা রোদে থাকতে হয়। এর চেয়ে বেশি সময় রোদে কাটালে স্কিন ক্যানসারের ঝুঁকি রয়েছে।

শরীরচর্চা: খেলাধুলা বা পুরো শরীরের ওপর প্রভাব বিস্তারকারী শরীরচর্চা (সিস্টেমিক এক্সারসাইজ) উচ্চতা বাড়াতে ভূমিকা রাখে। কিন্তু তাই বলে কিছুদিনের মধ্যেই লম্বা মানুষ হয়ে যাওয়ার স্বপ্ন দেখবেন না। শরীরচর্চা এমনভাবে উচ্চতা বাড়াবে যে টেরও পাবেন না। স্ট্রেচ করলেও কিছু উপকারী প্রতিক্রিয়া পাবেন। যেসব শরীরচর্চায় শরীর সম্প্রসারিত ও দীর্ঘায়িত হয় তা উচ্চতা বৃদ্ধিতে সত্যিই কার্যকর। কিছু স্ট্রেচিং এক্সারসাইজ দিয়ে দিন শেষ করুন, যেমন- হিপ ব্রিজেস ও লেগ স্ট্রেচেস।

স্বাস্থ্যকর দেহভঙ্গি: অনেকে কুঁজো হয়ে বসে থাকেন, কিন্তু এভাবে বসে থাকলে মেরুদণ্ড বেঁকে যায় ও সময়ের আবর্তনে কিছু উচ্চতা কমে যায়। কিন্তু সোজা হয়ে সঠিকভাবে বসলে দৈহিক উচ্চতা বাড়বে। চলাফেরার ক্ষেত্রেও একই কথা প্রযোজ্য। স্বাভাবিক দেহভঙ্গিমায় দিনযাপন করতে হবে।

নিজের ওপর বিশ্বাস: আত্মবিশ্বাসে উচ্চতা বাড়ানোর বিষয়গুলো মেনে চলা সহজ হয়। বিষণ্নতা বা দুশ্চিন্তা নয়, হাসিখুশি থাকুন ও আত্মবিশ্বাসী হোন। আত্মবিশ্বাসে শরীর ও মন উভয়ের ওপর ইতিবাচক প্রভাব পড়ে। যদি নিজেকে বিশ্বাস করাতে পারেন যে লম্বা হতে পারবেন, তাহলে উচ্চতা কিছু না কিছু বাড়বে।

পর্যাপ্ত ঘুম: শরীর সবসময় কাজের মধ্যে থাকে, এমনকি ঘুমের সময়ও। শিশুদের শরীর গঠনের বেশিরভাগ কাজ চলে ঘুমন্ত অবস্থায়। উচ্চতা বাড়াতে চাইলে প্রতিরাতে আট ঘণ্টা নির্বিঘ্ন ঘুমাতে হবে। ঘুমানোর ভঙ্গিও উচ্চতা বাড়াতে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখে। সর্বোচ্চ ফল পেতে বালিশ ছাড়াই চিৎ হয়ে শুয়ে থাকুন।

সু লিফটসের ব্যবহার: সু লিফটস কেবলমাত্র অভিনেতা-অভিনেত্রীদের জন্য নয়। নিজেকে লম্বা দেখাতে আপনিও সু লিফটস পরতে পারেন। এটা স্থায়ী সমাধান না হলেও অন্তত বিভিন্ন অনুষ্ঠানে নিজেকে লম্বা দেখাতে ব্যবহার করতে পারেন।

সঠিক পোশাক: সঠিক পোশাক পরলে আপনাকে লম্বা দেখাতে পারে। ঢিলেঢালা পোশাক পরলে উচ্চতা যা আছে তার চেয়ে কম মনে হতে পারে। আপনাকে লম্বা দেখাতে ফিটফাট ও সঠিক মাপের পোশাক পরুন।

* অস্বাস্থ্যকর অভ্যাস ত্যাগ: জীবনযাপন থেকে অস্বাস্থ্যকর অভ্যাসগুলো বাদ দিলে শরীর স্বাভাবিক প্রক্রিয়ায় বাড়তে থাকবে। এর ফলে উচ্চতাও বাড়বে।