কঙ্গনাকে গ্রেফতার না করার নির্দেশ আদালতের

জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আগামী ৮ জানুয়ারি মুম্বাই পুলিশের কাছে হাজিরা দিতে হবে অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাউত এবং তার বোন রঙ্গোলি চান্ডেলকে। বম্বে হাইকোর্ট মঙ্গলবার এমনই নির্দেশ দিয়েছে। তবে, এই সময়ের মধ্যে তাদের গ্রেফতার করা যাবে না বলেও নির্দেশ দিয়েছে হাইকোর্ট। খবর- আনন্দবাজার পত্রিকা।

সোশ্যাল মিডিয়ায় বিভিন্ন পোস্ট মারফৎ ‘সাম্প্রদায়িক বিভেদ এবং ধর্মীয় উত্তেজনা’ তৈরির অভিযোগে গত অক্টোবর মাসে মুম্বাই পুলিশ তাদের বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করে। সোমবার কঙ্গনা এবং রঙ্গোলি বম্বে হাইকোর্টে সেই এফআইআর বাতিলের আবেদন জানালেও এ দিন তা খারিজ হয়ে যায়। মুম্বাই পুলিশের জারি করা পর পর তিনটি সমনে কঙ্গনারা কোনও সাড়া না দেওয়াতেই এই সিদ্ধান্ত নেয় আদালত।

আইনজীবী মারফৎ কঙ্গনা ও তার বড় বোন রঙ্গোলি জানান, ভাইয়ের বিয়ে উপলক্ষে ব্যস্ত থাকায় তারা জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আসতে পারেননি। কিন্তু আদালত এই যুক্তি গ্রহণ করেনি। বিচারপতিরা জানিয়েছেন, যা-ই কারণ থাকুক, সমনকে সম্মান জানাতে হবে। এরই পাশাপাশি হাইকোর্ট অবশ্য কঙ্গনা ও তার বোনের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহিতার মামলা নিয়েও প্রশ্ন তুলেছে। বিচারপতি শিন্ডে পুলিশের উদ্দেশে প্রশ্ন করেন, আপনারা কি দেশের নাগরিকদের সঙ্গে এই রকম আচরণ করেন?

এরপর বিচারপতিরা কঙ্গনা ও রঙ্গোলিকে জানান, আমরা আবেদনকারীদের সময় দিতে পারি। জানুয়ারি মাসে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য হাজিরার সুযোগ দেওয়া হবে তাদের। তার আগে পুলিশ যাতে তাদের গ্রেফতার না করে সেই সুরক্ষা আমরা দেব।

অন্যদিকে মুম্বাই পুলিশের আইনজীবীর পাল্টা যুক্তি, ওদের আদালতের সুরক্ষার প্রয়োজন হলে যত দ্রুত সম্ভব ফিরে আসা উচিত। ওরা এমন কী বিশেষ ব্যক্তিত্ব যে জানুয়ারি মাস অবধি সময় দেওয়া হচ্ছে?

মুম্বাই পুলিশ এর আগে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য কয়েক দফায় তাদের ডেকে পাঠায়। কিন্তু কঙ্গনা এবং রঙ্গোলি প্রত্যেক বারই তা এড়িয়ে যান। তাদের আইনজীবী এর আগে পুলিশকে জানান, ভাইয়ের বিয়ে উপলক্ষে কঙ্গনারা ১৫ নভেম্বর পর্যন্ত হিমাচল প্রদেশে ব্যস্ত থাকবেন। গত সপ্তাহে মুম্বাই পুলিশ কঙ্গনা ও তার বোন রঙ্গোলিকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তৃতীয় বারের মতো ডেকে পাঠায়।