লঙ্কান ক্রিকেট সূচিতে ইংল্যান্ড-দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজ

আগামী বছরের শুরুতে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে দেশের মাটিতে টেস্ট সিরিজ হবে বলে আশাবাদী লঙ্কান কোচ মিকি আর্থার। চলতি বছরের ডিসেম্বরে টেস্ট খেলতে দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে যাওয়ারও সম্ভাবনা রয়েছে শ্রীলঙ্কার। বাংলাদেশ সিরিজ না হওয়ায় হতাশ শ্রীলঙ্কা এবার আশা দেখছে ইংল্যান্ড সিরিজ নিয়ে।

গত মার্চে কলম্বো ও গলে হওয়ার কথা ছিল শ্রীলঙ্কা-ইংল্যান্ড টেস্ট দুটি। করোনা ভাইরাসের শঙ্কায় সিরিজ স্থগিত না হলে খেলেই দেশে ফিরে গিয়েছিল জো রুটের দল। এরপর বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড শ্রীলঙ্কা সফর স্থগিত করে দেয়। বাংলাদেরে চাহিদা অনুযায়ী কোয়ারেন্টাইনের দিন কমাতে রাজী না হওয়ায় শ্রীলঙ্কা সফরে যায়নি বাংলাদেশ দল।

ডিসেম্বরে দক্ষিণ আফ্রিকা সফর শেষ করে শ্রীলঙ্কা জানুয়ারিতে দেশের মাটিতে খেলতে চায় ইংল্যান্ডের বিপক্ষে। কোচ মিকি আর্থারও বেশ আশাবাদী দলের সামনের ক্রিকেট সূচি নিয়ে। দ্রুত মাঠে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ফেরাতে ইংল্যান্ডের জন্য তাদের অপেক্ষা করতে হবে আগামী জানুয়ারি অবধি।

বার্তা সংস্থা পিএ’কে কোচ মিকি আর্থার বলেছেন, ‘আশা করছি ডিসেম্বরে দক্ষিণ আফ্রিকায় সিরিজ এবং দেশের মাঠে ইংল্যান্ড সিরিজ দিয়ে ২০২১ সালের ব্যস্ত সূচি শুরু করতে পারবো। আমি সত্যি ইতিবাচক। আমাদের এখন ক্রিকেটে ফেরাটা জরুরি। এখানে শ্রীলঙ্কায় খেলা চালিয়ে নিতে শক্তিশালী ব্যবস্থা রয়েছে।’

‘আমাদের ক্রিকেট চালিয়ে যাওয়া দরকার, অন্যথায় আমরা পুরো জিনিটি বন্ধ করে দিতে হবে। ভ্যাকসিনের জন্য অপেক্ষা করতে পারি।’

কোয়ারেন্টাইন বিধিমালা শিথিল না হলে ইংল্যান্ড দলও শ্রীলঙ্কায় সফর করবে বলে মনে হয় না। তবে লঙ্কান ক্রিকেট বোর্ড আশাবাদী যে তাদের সরকার এই সিরিজটি নিশ্চিত করতে সময়মতো সব চেষ্টা করবে। কারণ যেকোনো পন্থায় দেশে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ফেরাতে চাইবে শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট। গত ৬ মার্চের পর শ্রীলঙ্কায় কোন আন্তর্জাতিক ম্যাচ গড়ায়নি।

যদিও ইংল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ডকে বিসিবির মতো করে একই ধরনের শর্ত দেওয়ার সম্ভাবনা কম। কোভিড-১৯ বিধিমালা শিথিল করে ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইন ব্যবস্থার মধ্যেই জো রুটদের অনুশীলন করার সুযোগ দিবে শ্রীলঙ্কান বোর্ড।