আমচুরের গুনাগুন

আমচুর নামের সাথে আমরা কমবেশি অনেকেই পরিচিত। কাঁচা আম থেকে তৈরি করা হয় আমচুর পাউডার। এটি টক এবং হালকা মিষ্টি একধরনের পাউডার।

কাঁচা আমকে টুকরো করে কেটে রোদে শুকিয়ে গুঁড়া করে যে পাউডার প্রস্তুত করা হয় তাকে আমচুর পাউডার বা আমচুর মসলা বলা হয়। কোন কোন জায়গায় আমচুর কে সহজভাবে আমগুঁড়াও বলা হয়। আবার কোন কোনো দেশে একে গ্রীন ম্যাঙ্গ পাউডার বা আমচুর পাউডারও বলে।

জেনে নিন আমচুর পাউডারের ব্যবহার এবং উপকারিতা সম্পর্কেঃ

১. তরকারি, ডাল, ফুচকা, চটপটি ইত্যাদি খাবারকে সুস্বাদু করতে আমচুর পাউডার ব্যবহার করা হয়।

২. স্যুপ জাতীয় ও নিরামিষ রান্নায় আমচুর মসলা ব্যবহার টক ও মিষ্টির যৌথ কম্বিনেশনের অসাধারণ ফ্লেভার আনে।

৩. মাসালা চাট, পাপড়ি চাট জাতীয় খাবার রান্নায় আমচুর পাউডার অত্যাবশ্যকীয় উপাদান। বিভিন্ন ধরনের পাঁপড় বানাতেও আমচুর লাগে। রান্নায় লেবুর মতো হালকা টক স্বাদ নিয়ে আসে আমচুর। লেবুর পরিবর্তেও এটি ব্যবহার করা হয়।

৪. আমচুরের তীব্র, আম্লিক, সুস্বাদু গন্ধ অনেক খাদ্য দ্রব্য যেমন মাংস, তরকারী এবং সব্জীর স্বাদকে বাড়িয়ে তোলে৷ এটি ডিম, মাছ, এবং মাংসকে নরম করার জন্যও ব্যবহৃত হয়৷

৫. আমচুরে রয়েছে প্রচুর ভিটামিন এ, সি, ডি, বি-৬ এবং বিটা ক্যারোটিন। তাই প্রাচীনকাল থেকে আমচুরকে শরীর থেকে টক্সিন দূর করতে, রক্তস্বল্পতা ও স্নায়ুবিক রোগের চিকিৎসায় ব্যবহার করা হয়।

৬. আমচুর হজমশক্তি বৃদ্ধি করে এবং পেট ফাঁপা ও কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করে মলত্যাগ নিয়মিত করে।

৭. নিয়মিত আমচুর খেলে হৃদপিণ্ডের কার্যকারিতা বৃদ্ধি করে হার্ট অ্যাটাক থেকে রক্ষা করে।

৮. আমচুরে প্রচুর পরিমাণে আয়রন বা লৌহ থাকে। যারা লৌহের অভাবজনিত রক্তস্বল্পতায় ভোগে তাদের নিয়মিত আমচুর খাওয়া উচিৎ।

৯. প্রচুর ভিটামিন সি থাকায় স্কার্ভি রোগ থেকে মানুষকে রক্ষা করে।

১০. আমচুর হরমোনের কার্যকারিতার মাধ্যমে শরীরের বয়স্কের ছাপ দূর করে, চোখ পরিষ্কার থাকে এবং চোখের ছানি পড়া থেকে রক্ষা করে।