টাইগারদের প্রথম টেস্ট জয়ের ১৫ বছর পূর্তি | |

টাইগারদের প্রথম টেস্ট জয়ের ১৫ বছর পূর্তি

শুরুটা ২০০০ সালে হলেও কাঙ্ক্ষিত জয়ের দেখা পেতে আরো পাঁচটি বছর অপেক্ষা করতে হয় বাংলাদেশ টেস্ট দলকে। আজ সেই ১০ জানুয়ারি। ঠিক ১৫ বছর আগে, এই দিনে টেস্ট ক্রিকেটের প্রথম টেস্ট জয়ের স্বাদ পেয়েছিল বাংলাদেশ দল। চট্টগ্রামের এম এ আজিজ স্টেডিয়ামে ২২৬ রানে জিম্বাবুয়েকে পরাজিত করে বাংলাদেশ প্রথম টেস্ট জয়ের স্বাদ পেয়েছিল।

২০০৫ সালের ৬ জানুয়ারি শুরু ম্যাচে টসে জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নিলেন অধিনায়ক হাবিবুল। প্রথমেই ব্যাট করতে নেমে ইনিংসের গোড়াপত্তন করতে আসেন ওপেনার জাভেদ ওমর ও নাফিস ইকবাল। দুজনেই ৯১ রানের ওই জুটি শক্ত একটি ভিত্তি তৈরি করে দিয়েছিল দলকে। পরবর্তীতে নাফিস করেছিলেন ৫৬, হাবিবুল ৯৪, রাজিন সালেহ ৮৯, মোহাম্মদ রফিক ৬৯, খালেদ মাসুদ পাইলট (৪৯) ও মাশরাফি বিন মুর্তজার (৪৮)।প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশ অলআউট হয় ১৪৯.৩ ওভারে ৪৮৮ রানে। তখন সেটিই ছিল বাংলাদেশের সর্বোচ্চ দলীয় রান।

জিম্বাবুয়ে প্রথম ইনিংসে ব্যাটিং করতে নেমে মাশরাফি-তাপসের পেস আক্রমণ ও রফিকের ঘূর্ণি জাদুতে দিশেহারা জিম্বাবুয়ে। যেখানে ১৫২ রানেই জিম্বাবুয়ের ৬ উইকেট হারিয়ে বসে। কিন্তু ওদের অধিনায়ক তাইবু শেষ দিকে ভালো একটি ইনিংস (৯২) খেললে প্রথম ইনিংসে জিম্বাবুয়ের সংগ্রহ সব উইকেট হারিয়ে ৩১২। বাংলাদেশের পক্ষে রফিক নিলেন ৫টি, মাশরাফি ৩টি ও তাপস ১টি উইকেট।

দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমেই বিপর্যয়ে পড়ল বাংলাদেশ। এ অবস্থায় আবারও হেসে উঠল হাবিবুলের ব্যাট। দ্বিতীয় ইনিংসে ৯ উইকেটে ২০৪ করে ইনিংস ঘোষণা করে বাংলাদেশ। জিম্বাবুয়ের পক্ষে সর্বোচ্চ ৫ উইকেট নেন এলটন চিগুম্বুরা।

৩৮১ রানের লক্ষ্য নিয়ে ব্যাট করতে নেমেই শুরুতেই বিপাকে পরে জিম্বাবুয়ে। তাপসের বোলিং তোপে ৩.৪ ওভারে জিম্বাবুয়ের স্কোর—২ রানে ২ উইকেট। এবার ঘূর্ণি জাদু দেখান এনামুল হক জুনিয়র। একাই ৬ উইকেট নিয়ে সফরকারিদের ১৫৪ রানে গুটিয়ে দেন বাঁহাতি এই স্পিনার। এছাড়া ২টি করে উইকেট নেন তাপস বৈশ্য আর মাশরাফি বিন মর্তুজা।