পদ্মার ভাঙনে দৌলতদিয়ায় ৩ ঘাট বন্ধ, যানবাহনের দীর্ঘ সারি | |

পদ্মার ভাঙনে দৌলতদিয়ায় ৩ ঘাট বন্ধ, যানবাহনের দীর্ঘ সারি

পদ্মা নদীতে পানি কমলেও রাজবাড়ীর দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটের দৌলতদিয়া প্রান্তে আবারো দেখা দিয়েছে ভাঙন। বৃহস্পতিবার ৩ নম্বর ফেরি ঘাটটি নদী ভাঙনে বিলীন হওয়ায় ঘাটের ৬টির মধ্যে ৩টিই বন্ধ রয়েছে। ফলে ফেরি সংকটে পড়ে কয়েকশ যানবাহন নদী পাড়ের অপেক্ষায় রয়েছে।

বিআইডব্লিটিএ ও বিআইডব্লিটিসি সূত্রে জানা গেছে, গত ২৪ অক্টোবর সন্ধ্যায় দৌলতদিয়া ঘাটের ৩ নম্বর ফেরি ঘাটটির র‌্যাম বেইজসহ উজানের দিকে লম্বায় প্রায় ৫০ মিটার ও চওড়ায় ২০ মিটার এলাকা ধসে বিলীন হয়ে যায়। বিআইডব্লিউটিএ কর্তৃপক্ষ ঘাটটি সচল রাখার জন্য জিও ব্যাগ, ড্রাম্পিংসহ ব্রিড ব্যাডস দিয়ে ঘাটটি পূর্ণ নির্মাণের কাজ চালিয়ে যাচ্ছে। এর আগে ভাঙন তীব্র হওয়ায় ৪ অক্টোবর ১ নম্বর এবং ৫ অক্টোবর ২ নম্বর ঘাটের সংযোগ সড়ক বিলীন হওয়ায় ঘাট দুটি বন্ধ হয়ে যায়। রাজবাড়ী পানি উন্নয়ন বোর্ড সেখানে বালুভর্তি জিও ব্যাগ ফেললেও এখন পর্যন্ত ঘাট দুটি চালু করা সম্ভব হয়নি।

শনিবার বিকাল ৫টায় দৌলতদিয়ার ৩ নম্বর ফেরি ঘাট এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, ঘাটের এ্যাপোজ সড়কটির পুরো অংশে ছোট বড় গর্তের সৃষ্টি হয়ে বৃষ্টির পানি জমে রয়েছে।

জানা গেছে, গত বৃহস্পতিবার দিনভর বৃষ্টির সঙ্গে বাতাস বইতে থাকায় ভাঙনের মাত্রা বেড়ে যায়। ফলে ৩ নম্বর ঘাটের সংযোগ সড়কের মাথা ভেঙে বিলীন হয়। এরপর সন্ধ্যার দিকে সড়ক থেকে পন্টুনের মাঝে ফাকা হয়ে আলাদা হয়ে যায় ঘাট। বাধ্য হয়ে কর্তৃপক্ষ এটি বন্ধ করে দেয়। ফলে অপর ৪, ৫ ও ৬ নম্বর ঘাট দিয়ে ফেরিতে যানবাহন ওঠানামা শুরু করে। এর মধ্যে ৬ নম্বর ঘাটটি শুধুমাত্র ছোট ফেরির জন্য হওয়ায় কোন বড় ফেরি ভিড়তে পারে না। এতে যানবাহন পারাপার ব্যাহত হওয়ায় ঘাটে গাড়ির চাপ বাড়তে থাকে।

বিআইডব্লিউটিএর উপসহকারী প্রকৌশলী শাহ আলম জানান, গত দুইদিন যাবৎ বিআইডব্লিউটিএ কর্তৃপক্ষ বালুভর্তি জিওব্যাগ ফেলে ভাঙন রোধের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

বিআইডব্লিউটিসি দৌলতদিয়া কার্যালয়ের সহকারী ব্যবস্থাপক মাহবুব হোসেন জানান, দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটে ১৫টি সচল রয়েছে। এর মধ্যে ৪টি রো-রো ফেরি ঘাট সংকটের কারণে চলাচল বন্ধ রয়েছে। ঘাট এলাকায় প্রায় নদী পাড়ের অপেক্ষায় ৩ শতাধিক যানবাহন রয়েছে।