বশেমুরবিপ্রবিতে ছাত্র আন্দোলন, উত্তাল ক্যাম্পাস | |

বশেমুরবিপ্রবিতে ছাত্র আন্দোলন, উত্তাল ক্যাম্পাস

গোপালঞ্জের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের ছাত্রী ফাতেমা-তুজ-জিনিয়াকে বহিষ্কার করার পর থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য খন্দকার নাসিরউদ্দিনের পদত্যাগের দাবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলন আজ রোববারও (২২ সেপ্টেম্বর) চতুর্থ দিনের মত  অব্যাহত রয়েছে। ভিসি পদত্যাগ করা না পর্যন্ত আন্দোলন চলবে বলে জানিয়েছে শিক্ষার্থীরা।

সকাল ১০টার মধ্যে শিক্ষার্থীদের হল ত্যাগের নির্দেশ দেয় কর্তৃপক্ষ। কিন্তু শিক্ষার্থীরা সে আদেশ না মেনে সকাল থেকেই ক্যাম্পাসে জড়ো হয়ে বিক্ষোভ করছে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা। ভিসিবিরোধী নানা শ্লোগান দিচ্ছেন তারা। আজ চতুর্থ দিনের মতো আন্দোলন চলছে।

ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর ড. মো. বশির উদ্দীনের সঙ্গে বিশ্ববিদ্যালয়ের সবশেষ পরিস্থিতি নিয়ে বলেন, শিক্ষার্থীরা আগের মতোই আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছেন। তাদের সঙ্গে সমঝোতার চেষ্টা চালানো হলেও তারা আমাদের সঙ্গে কোনো কথা বলছেন না।

এদিকে শনিবার শিক্ষার্থীদের ওপর বহিরাগতদের হামলার ঘটনায় তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

নির্দেশ দেয়া হয়েছে আগামী ৫ দিনের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দেয়ার। আন্দোলনের মুখে বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ ঘোষণা করে কর্তৃপক্ষ। তবে তা উপেক্ষা করেই আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছেন শিক্ষার্থীরা।

প্রসঙ্গত বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন অনিয়ম নিয়ে ফেসবুকে লেখালেখি করায় গত ১১ সেপ্টেম্বর আইন বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী ফাতেমা-তুজ-জিনিয়াকে সাময়িক বহিষ্কার করেছিল বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। এরপর থেকেই এ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে উপাচার্যের বিরুদ্ধে সমালোচনার ঝড় ওঠে।

তবে বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের চেয়ারম্যানসহ শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা উপাচার্য বরাবর জিনিয়ার বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহার চেয়ে একটি লিখিত আবেদন করেন। উপাচার্য বহিষ্কারাদেশ তুলে নেন। তবে শিক্ষার্থীরা উপাচার্যের পদত্যাগের দাবিতে জোর আন্দোলন গড়ে তোলেন। উপাচার্য পদত্যাগের আগে তারা আন্দোলন থামাবেনা বলেও জানিয়েছে শিক্ষার্থীরা।