এরশাদের আসনে ভোটের তারিখ ঘোষণা

সাবেক রাষ্ট্রপ্রতি ও জাতীয় পার্টির সাবেক চেয়ারম্যান প্রয়াত হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের শূন্য আসনে আগামী ৫ অক্টোবর উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

আজ রবিবার (১ সেপ্টেম্বর) রাজধানীর আগারগাঁও নির্বাচন ভবনেরর মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে নির্বাচন কমিশনের অতিরিক্ত সচিব মো. মোখলেছুর রহমান নির্বাচনের এ তফসিল ঘোষণা করেন।

তিনি বলেন, আগামী ৫ অক্টোবর ভোটগ্রহণ হবে। আর ৯ সেপ্টেম্বর মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ সময় নির্ধারণ করা হয়েছে। এছাড়া মনোনয়নপত্র বাছাই ১১ সেপ্টেম্বর। আর প্রার্থিতা প্রত্যাহার করা যাবে ১৬ সেপ্টেম্বর। পুরো নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে ইভিএমে।

মোখলেছুর রহমান বলেন, আগামী ১২ থেকে ১৪ সেপ্টেম্বর সকাল ৯টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ে আপিল গ্রহণ করা হবে। আপিল নিষ্পত্তি করা হবে ১৫ সেপ্টেম্বর।

নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা হিসেবে রংপুর আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা এবং সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা হিসেবে রংপুরের সিনিয়র জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা, সদর উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তাকে নিয়োগ করা হয়েছে।

একাদশ সংসদে বিরোধীদলীয় নেতা এইচ এম এরশাদ ৯০ বছর বয়সে ১৪ জুলাই মারা যান। তার মৃত্যুতে রংপুর-৩ আসন শূন্য ঘোষণা করে সংসদ সচিবালয়। আসন শূন্য হওয়ার পরবর্তী ৯০ দিনের মধ্যে করার সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতা রয়েছে।

রংপুর সদর উপজেলা এবং রংপুর সিটি করপোরেশনের ১-৮ নম্বর ওয়ার্ড ছাড়া বাকি এলাকা নিয়ে গঠিত রংপুর-৩ আসনে ভোটার সংখ্যা ৪ লাখ ৪১ হাজার ৬৭৩ জন। এই আসনে সম্ভাব্য ভোটকেন্দ্র ১৩০টি, ভোটকক্ষ ৯১০টি।

রংপুরের সন্তান এরশাদ গণআন্দোলনের মুখে ক্ষমতা ছাড়তে বাধ্য হওয়ার পরও নিজের এলাকায় বরাবরই তুমুল জনপ্রিয় ছিলেন। ওই আসন থেকে বরাবরই বিপুল ভোটে বিজয়ী হয়ে আসছিলেন তিনি।

গত ৩০ ডিসেম্বরের নির্বাচনে মহাজোটের শরিক হিসেবে জাতীয় পার্টির সঙ্গে আসন ভাগাভাগি করে আওয়ামী লীগ। ফলে রংপুরের আসনে তাদের প্রার্থী না থাকলেও উপনির্বাচনে নৌকার প্রার্থী দেওয়ার চিন্তা করছে।

জাতীয় প্রার্থী এখনও তাদের প্রার্থী ঠিক করতে পারেনি।