এনআরসির প্রভাব বাংলাদেশে পড়বে না: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

আসামের প্রকৃত নাগরিকদের নামের তালিকা (এনআরসি) প্রকাশ করা হয়েছে। ওই তালিকায় চূড়ান্তভাবে ঠাঁই হয়েছে ৩ কোটি ১১ লাখ লোকের। এই তালিকা থেকে বাদ পড়ছে ১৯ লাখের বেশি মানুষ।

আসামের এনআরসি নিয়ে দীর্ঘদিন ধরেই আলোচনা চলছিল। শনিবার (৩১ আগস্ট) সকাল ১০টায় অনলাইনে তালিকা প্রকাশ করা হয়। তালিকা প্রকাশের পর ১৯ লাখ ৬ হাজার মানুষের ভবিষ্যৎ অনিশ্চয়তায় পড়ে গেছে।

তবে ভারতের আসামের এনআরসির (জাতীয় নাগরিক নিবন্ধন) কোনো প্রভাব বাংলাদেশে পড়বে না বলে জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন।

আজ রবিবার (১ সেপ্টেম্বর) রাজধানীর ঢাকা ক্লাবে আয়োজিত এক অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে তিনি এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, ‘ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আমাদের বলে গেছেন, এনআরসি ভারতের অভ্যন্তরীণ ব্যাপার, এ নিয়ে কোনো সমস্যা হবে না। তাদের বলা হয়েছে, আমরা ১১ লাখ রোহিঙ্গা নিয়ে সংকটে আছি। ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আমাদের আশ্বস্ত করেছেন, কোনো সমস্যা হবে না।’

তবে আসামের এনআরসি পরিস্থিতি বাংলাদেশ পর্যবেক্ষণ করছে বলে জানান পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. মোমেন।

সীমান্ত এলাকার নিরাপত্তা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘প্রতিটি দেশ তার বর্ডারে নিরাপত্তা জোরদার রাখে। আমরাও নিরাপত্তা জোরদার করেছি।’

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘আসামের জাতীয় নাগরিকপঞ্জি থেকে বাদ পড়ার তালিকায় একজন বাংলাদেশিও নেই। এখন বাংলাদেশের অর্থনৈতিক অবস্থা অনেক ভালো। কেউ আর ভারতে যাবেন না।’

তিনি বলেন, ‘১৯৪৭, ১৯৭১ এবং ১৯৭৫-এর পর কোনো বাংলাদেশি ভারতে যাননি। ওই সময় যারা গেছেন তারা বিশেষ কারণে গেছেন।’

শেখ কামাল স্মৃতি প্রথম সার্ক স্নোকার চ্যাম্পিয়নশিপ-২০১৯ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী। অনুষ্ঠানে সভাপতি ছিলেন ঢাকা ক্লাবের সভাপতি খায়রুল মজিদ মাহমুদ।

এতে আরো বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ বিলিয়ার্ডস অ্যান্ড স্নোকার ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ মাহবুব, টুর্নামেন্ট পরিচালক এ এ ইব্রাহীম কাজু প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

সোমবার (২ সেপ্টেম্বর) থেকে শেখ কামাল স্মৃতি প্রথম সার্ক স্নোকার চ্যাম্পিয়নশিপ-২০১৯ শুরু হবে। টুর্নামেন্টে বাংলাদেশ ছাড়াও অংশগ্রহণ করবে ভারত, নেপাল, পাকিস্তান ও শ্রীলঙ্কা।

আগামী ৬ সেপ্টেম্বর (শুক্রবার) টুর্নামেন্টের সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি থাকবেন প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান।