মিয়ানমার থেকে ২০-২৫ হাজার গরু আমদানি | |

মিয়ানমার থেকে ২০-২৫ হাজার গরু আমদানি

কক্সবাজার জেলার টেকনাফের শাহপরীর দ্বীপ করিডোর দিয়ে চলছে কোরবানির পশু আমদানি। মিয়ানমার থেকে ২০-২৫ হাজার গরু আমদানির পরিকল্পনা রয়েছে বলে জানিয়েছেন গরু ব্যবসায়ীরা। গত জুলাই মাস থেকে আজ (৩ আগস্ট) পর্যন্ত আমদানি হয়েছে ১২ হাজার ৭১৭টি পশু।

টেকনাফ গরু ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি পৌর কাউন্সিলর আব্দুল্লাহ মনির গণমাধ্যমকে বলেন, বৈরি আবহাওয়ার পর মিয়ানমার থেকে আবার পুরোদমে গরু আমদানি শুরু হবে। মিয়ানমার কর্তৃপক্ষ বাধা সৃষ্টি না করলে কোরবানির আগ পর্যন্ত আরও ২০ থেকে ২৫ হাজার গরু আমদানির পরিকল্পনা রয়েছে।

করিডোরের ব্যবসায়ী শহীদুল ইসলাম বলেন, গত চারদিনে মিয়ানমার থেকে ১ হাজার ৭০টি গরু আমদানি সম্ভব হয়েছে। চাহিদা বেশি থাকায় দামও মোটামুটি ভালো পাচ্ছি। এভাবে পশু আমদানি অব্যাহত রাখা গেলে স্থানীয় চাহিদা মিটিয়ে দেশের বিভিন্ন বাজারেও এখানকার গরু সরবরাহ সম্ভব হবে।

টেকনাফ শুল্ক বিভাগ সূত্রে জানা যায়, ২০০৩ সালের ২৫ মে টেকনাফের শাহপরীর দ্বীপে নাফ নদী সংলগ্ন এলাকায় চালু করা হয় একটি ক্যাটল করিডোর। এ করিডোর দিয়ে পশু আমদানির ক্ষেত্রে প্রতিটি গরু-মহিষ থেকে ৫ শত ও ছাগল থেকে ২ শত টাকা হারে রাজস্ব আদায় করা হয়।

গত জুলাই মাসে এ করিডোর দিয়ে আমদানি হয়েছে ৬ হাজার ৭৪৪টি গরু ও ৩ হাজার ৩৫১টি মহিষ। এছাড়া গত ১ ও ২ আগস্ট দু’দিনে ২ হাজার ১২টি গরু এবং ৬১০টি মহিষ আমদানি করা হয়েছে। তবে বৈরি আবহাওয়ার কারণে আজ শনিবার (৩ আগস্ট) গরু বোঝাই কোনো ট্রলার মিয়ানমার থেকে টেকনাফে আসেনি।