পচা-বাসি খাবার: আবুল হোটেলকে ছয় লাখ জরিমানা

রান্না করা ও পচা-বাসি মাংস ফ্রিজে সংরক্ষণ এবং অস্বাস্থ্যকর ও নোংরা পরিবেশে খাবার বিক্রির অভিযোগে রাজধানীর মালিবাগের আবুল হোটেলকে তিন লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। অভিযানে মেয়াদউত্তীর্ণ খাবার বিক্রির অভিযোগে আবুল চাইনিজকেও তিন লাখ টাকা জরিমানা গুণতে হয়েছে।

বৃহস্পতিবার দুপুর থেকে বিকাল পর্যন্ত চলে এই অভিযান। অভিযান পরিচালনা করেন র‌্যাব-৩ এর নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আখতারুজ্জামান।
অভিযান শেষে আখতারুজ্জামান ঢাকা টাইমসকে বলেন, ‘আবুল হোটেলের প্রথম অপরাধ ছিল তারা রান্না করা মাংস ও পচা-মাংস পুনরায় বিক্রির জন্য ফ্রিজে সংরক্ষণ করেছিল। আরেকটি অপরাধ- হোটেলটি অস্বাস্থ্যকর ও নোংরা পরিবেশে খাবার বিক্রি করছিল। তাদের রান্না ঘর ছিল খুবই অপরিচ্ছন্ন ও স্যাঁতস্যাঁতে। এই পরিবেশে তারা খাবার তৈরি করছিল। এছাড়া রান্না ঘরে খাবার তৈরি ও পরিবেশনে যারা কাজ করছিল তাদের হ্যাট, এ্যাপ্রোন সেগুলো ব্যবহার করছিল না। এসব অভিযোগে প্রতিষ্ঠানটিকে তিন লাখ টাকা জরিমানা করা হয়।’

‘এছাড়া আবুল চাইনিজ রেস্টুরেন্টে গিয়ে দেখা যায় সেদ্ধ সবজি এবং কাঁচা মাছ-মাংস একই চেম্বার সংরক্ষণ করে রেখেছিল। ফ্রেঞ্চ ফ্রাই, অন্থনসহ বিভিন্ন চাইনিজ খাবার তৈরিতে মেয়াদোত্তীর্ণ খামির ব্যবহার করছিল। চাইনিজ রেস্টুরেন্টটি যেসব ফ্রেঞ্চ ফ্রাই বিক্রি করছিল সেগুলো কোন কোম্পানির তা লেখা ছিল না। এমনকি উৎপাদন তারিখ, মূল্য এসব কিছু ছিল না। অর্থাৎ এটা বড় অপরাধ ছিল। এসব অভিযোগে তাদেরকে তিন লাখ টাকা জরিমানা করা হয়।’

অভিযানে অস্বাস্থ্যকর ও নোংরা পরিবেশে খাবার বিক্রির অপরাধে মামা হোটেল কে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে বলে জানান আখতারুজ্জামান।