ঈদের পরে ছাত্রদলের কাউন্সিল | |

ঈদের পরে ছাত্রদলের কাউন্সিল

বিএনপির অন্যতম সহযোগী সংগঠন জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের কাউন্সিল ঈদুল আজহার পর যেকোনো এক‌দিন নির্ধারণ করা হবে। তবে কেন্দ্রীয় কমিটি গঠনের জন্য আগামী ২৬ আগস্ট কাউন্সিলের সম্ভাব্য তারিখ ঠিক করেছেন কমিটি গঠনে দায়িত্বপ্রাপ্ত সার্চ কমিটির নেতারা। এই কাউ‌ন্সিল গত ১৫ জুলাই অনু‌ষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল। বিএনপির সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে এসব তথ্য।

জানতে চাইলে বিএনপির প্রচার সম্পাদক ও সার্চ কমিটির অন্যতম নেতা শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানী বলেন, ছাত্রদলের কাউন্সিলের তারিখ এখনো নির্ধারিত হয়নি। তবে কাউন্সিল ঈদের পরে হবে। হয়তো এই মাসের শেষ সপ্তাহে কিংবা সেপ্টেম্বর মাসের যেকোন সময় কাউন্সিলের জন্য একটা তারিখ নির্ধারিত করা হবে।

গত ৩ জুন নতুন কমিটি গঠনে ছাত্রদলের বর্তমান কমিটি ভেঙে দেওয়া হয়। পরবর্তীতে গত ১১ জুন বয়সসীমা না করে ধারাবাহিক কমিটির দাবিতে আন্দোলন নামে ছাত্রদলের বিগত কমিটির বিক্ষুব্ধ নেতাকর্মীরা।

তবে ছাত্রদলের বিক্ষুব্ধ নেতাদের আন্দোলনের মধ্যেই গত ২৩ জুন সংগঠনটির কাউন্সিলের জন্য গঠিত সার্চ কমিটির নেতারা সংবাদ সম্মেলন করে ঘোষণা করেন যে, ১৫ জুলাই ছাত্রদলের নির্বাচনের তারিখ নির্ধারিত করা হয়েছে।

এরপর গত ২৮ জুন বিএনপির সিনিয়র নেতাদের আশ্বাসে ছাত্রদলের কাউন্সিলের তফসিল বাতিল ও মনোনয়নপত্র বিতরণ বন্ধের দাবিতে চলমান আন্দোলন স্থগিত করেন সংগঠনটির বিক্ষুব্ধ নেতারা। পরে বিক্ষুব্ধ নেতাদের আর আন্দোলন করতে দেখা যায়নি। পরে ছাত্রদলের বিক্ষুব্ধ নেতারা সংবাদ সম্মেলন করে দাবি করেন যে, স্বার্থান্বেষী মহল এই অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটিয়েছে।

এদিকে গত সোমবার ছাত্রদলের সংকট নিরসনে ছাত্রদলের বিক্ষুব্ধ নেতাকর্মীদের সঙ্গে স্কাইপিতে বৈঠক করেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান। বৈঠকে তারেক রহমানের যেকোন সিদ্ধান্ত মানার জন্য অঙ্গিকার করেছেন বিলুপ্ত কমিটির বিক্ষুব্ধ ছাত্রনেতারা। তবে তাদের দাবিকেও মূল্যায়নের জন্য তারেক রহমানের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন তারা।

বৈঠক সূত্র জানায়, বৈঠকে ছাত্রদলের সাবেক নেতারা তাদের দাবি-দাওয়া নিয়ে বক্তব্য রাখেন। তাদের দাবির যৌক্তিকতা তুলে ধরেন। বিগত দিনে ছাত্রদলের নিয়ন্ত্রণকারী কথিত সিন্ডিকেট নিয়ে নিজেদের তিক্ততার কথাও তুলে ধরেন।

বৈঠকে প্রায় ২০ জনের মতো নেতা বক্তব্যে স্বল্পকালীন সময়ের জন্য আহ্বায়ক কমিটি গঠনের দাবি করেন। তারা বলেন, দলের সিদ্ধান্ত মেনে ছাত্রদলের কাউন্সিল পর্যন্ত তারা এ কমিটি চান। তাদের নেতৃত্বে কাউন্সিল শেষে এ সংগঠন থেকে আনুষ্ঠানিক বিদায় নেওয়ার দাবি তুলেন তারা। এসময় তারেক রহমান তাদের সবার কথা শুনেন।

বহিষ্কার ৭ নেতাকে দলে ফেরাল বিএনপি

সবশেষে তারেক রহমান বিক্ষুব্ধ ছাত্রনেতাদের উদ্দেশ্যে বলেন, তিনি খুব দ্রুত সময়ের মধ্যে তার সিদ্ধান্ত জানাবেন। তবে তিনি যে সিদ্ধান্ততই দিবেন তা মেনে নিয়ে রাজনীতি করার আহ্বান জানান তিনি।

জানতে চাইলে ভেঙে দেওয়া ছাত্রদলের কমিটির সহসভাপতি ইখতিয়ার রহমান কবির বলেন, ভাইয়ার সঙ্গে আমাদের বৈঠক হয়েছে। ভাইয়া সংগঠনকে গতিশীল করতে ছাত্রদলের চলমান সংকট নিরসনের কথা বলেছেন। আর আমরা ভাইয়ার কাছে অঙ্গিকার করেছি যে, ছাত্রদলের সংকট নিরসনে উনি যে সিদ্ধান্ত দেবেন, তা আমরা মেনে নেবো।