স্যানিটারি ন্যাপকিন উপকরণ আমদানিতে ভ্যাট ও সম্পূরক শুল্ক অব্যাহতি পেয়েছে: এনবিআর | |

স্যানিটারি ন্যাপকিন উপকরণ আমদানিতে ভ্যাট ও সম্পূরক শুল্ক অব্যাহতি পেয়েছে: এনবিআর

নারীর প্রজনন স্বাস্থ্য সুরক্ষার লক্ষ্যে ২০১৯-২০ অর্থবছরের বাজেটে দেশীয় স্যানিটারি ন্যাপকিন উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান কর্তৃক আমদানিকৃত উপকরণের ওপর প্রযোজ্য ভ্যাট ও সম্পূরক শুল্ক অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। এতে দেশে উৎপাদিত স্যানিটারি ন্যাপকিনের দাম কমবে এবং স্বল্পমূল্যে নারীরা এটি ব্যবহার করতে পারবে বলে জানিয়েছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)।

আজ বুধবার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানিয়ে এনবিআর বলছে, ২০১৯-২০ অর্থবছরের বাজেটে স্যানিটারি ন্যাপকিনের ওপর মূল্য সংযোজন কর আরোপের ফলে এর মূল্য বৃদ্ধি পেয়েছে মর্মে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম এবং কিছু ইলেকট্রনিক ও প্রিন্ট মিডিয়ায় প্রচার চলছে। এ বিষয়ে ‘দি সিক্সথ সেন্স’ নামক একটি প্রতিষ্ঠান গত ২৮ জুন জাতীয় যাদুঘরের সামনে মানব বন্ধন করে। এছাড়া কিছু অনলাইন মাধ্যমে স্যানিটারি ন্যাপকিনের ওপর ৪০ শতাংশ মূসক আরোপ করা হয়েছে মর্মেও সংবাদ প্রচারিত হচ্ছে। এগুলো সব মিথ্যা ও বিভ্রান্তি সৃষ্টিকারি প্রচারণা।

রাজস্ব প্রশাসন জানায়, বর্তমান সরকার নারীর সামাজিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করা ও ক্ষমতায়নের পাশাপাশি স্বাস্থ্য সুরক্ষার দিকটিও অত্যন্ত গুরুত্বের সঙ্গে বিবেচনা করে। তাই নারীর প্রজনন স্বাস্থ্য সুরক্ষার লক্ষ্যে ২০১৯-২০ অর্থবছরের বাজেটে প্রজ্ঞাপন এস আরও নম্বর-২৪০-আইন/২০১৯/৭৬ মারফত দেশীয় স্যানিটারি ন্যাপকিন উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান কর্তৃক আমদানিকৃত উপকরণের উপর প্রযোজ্য ভ্যাট ও সম্পূরক শুল্ক অব্যাহতি প্রদান করা হয়েছে।

সংস্থাটি দাবি করছে, স্যানিটারি ন্যাপকিন বা সমজাতীয় কোন পণ্যের ওপর ভ্যাট আরোপ করা তো দূরের কথা বরং স্যানিটারি ন্যাপকিন উপকরণের ওপর আমদানি পর্যায়ে ভ্যাট ও সম্পূরক শুল্ক অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। এরপরও কতিপয় ব্যক্তি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এ বিষয়ে অপপ্রচার চালাচ্ছেন যা কোনোভাবেই কাম্য নয়। এই প্রচারে কাউকে বিভ্রান্ত না হওয়ার অনুরোধ জানিয়েছে এনবিআর। বাসস