মিয়ানমার প্রতিনিধিদল-রোহিঙ্গা সংলাপে বসবে

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন ইস্যুতে যৌথ সংলাপে অংশ নিতে সম্মত হয়েছে মিয়ানমার সরকারের প্রতিনিধি ও রোহিঙ্গারা। সংলাপে বাংলাদেশ, আন্তর্জাতিক সংস্থার প্রতিনিধিরাও অংশ নেবেন।

তবে কবে নাগাদ সংলাপ অনুষ্ঠিত হবে তা কেউ নিশ্চিত করতে পারেনি।

মিয়ানমারের প্রতিনিধিদলের রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শনের পর প্রতিনিধিদলের সঙ্গে আলোচনায় অংশ নেয়া রোহিঙ্গারা এমন তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তবে এ ব্যাপারে গণমাধ্যমের সঙ্গে মিয়ানমারের প্রতিনিধি দলের কেউ বা বাংলাদেশের সংশ্লিষ্ট কোনো কর্মকর্তা কথা বলেননি।

মিয়ানমার সরকারের প্রতিনিধিদল রোববার রোহিঙ্গা হিন্দু ক্যাম্প পরিদর্শন করবে।

মিয়ানমারের পররাষ্ট্র সচিব মিন্ট থোয়ে’র নেতৃত্বে ১৯ সদস্যের প্রতিনিধি দল শনিবার সকাল ১০টায় বিমানযোগে কক্সবাজার পৌঁছান। প্রতিনিধিদল বিমানবন্দর থেকে হোটেল রয়েল টিউলিপে যান। এরপর উখিয়ার কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শনে যান।

প্রতিনিধিদল দুপুর দেড় টার দিকে কুতুপালং ক্যাম্পে যায়। সেখানে রোহিঙ্গা সংশ্লিষ্ট সরকারি কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠক করে। এরপর প্রতিনিধিদলটি রোহিঙ্গাদের ৩৫ জনের একটি দলের সঙ্গে আলোচনায় বসে। যেখানে সাত জন নারী ও ২৮ জন পুরুষ রোহিঙ্গা প্রতিনিধি ছিলেন।

দুই দফার আলোচনায় রোহিঙ্গাদের নিজ দেশে ফিরে যাওয়ার আহ্বান জানান মিয়ানমারের প্রতিনিধিরা। একইসঙ্গে ফিরে গেলে সেখানে কী রকম সুযোগ-সুবিধা পাবেন তার সম্পর্কে ধারণা দেয়া হয়। এ সময় রোহিঙ্গাদের পক্ষে নানা দাবি উত্থাপন করা হয়। বৈঠকে অংশ নেয়া কয়েকজন রোহিঙ্গা জানান, বৈঠকে প্রত্যাবাসন ইস্যুতে যৌথ সংলাপে সম্মতি জানিয়েছেন মিয়ানমারের প্রতিনিধিরা।

রোববার রোহিঙ্গা হিন্দু ক্যাম্প পরিদর্শন শেষে প্রতিনিধিদল গণমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলতে পারেন।

মিয়ানমারের আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর নির্যাতনের মুখে দেশটির রাখাইন রাজ্যের প্রায় ১০ লাখ রোহিঙ্গা পালিয়ে এসে বাংলাদেশের কক্সাবাজার জেলায় আশ্রয় নিয়েছে। বাংলাদেশ সরকার চেষ্টা করছে তাদের নিজ দেশে ফেরত পাঠাতে।