বেয়ারস্টোর সেঞ্চুরিতে ইংল্যান্ডের সংগ্রহ ৩০৫

ইংল্যান্ড যেভাবে শুরু করেছিল সেভাবে শেষ করতে পারেনি। তারপরও লড়াই করার জন্য ভালো পুঁজি পেয়েছে তারা। বিশ্বকাপে বুধবার নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে টস জিতে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৮ উইকেটে ৩০৫ রান সংগ্রহ করেছে ইংলিশরা।

এর আগের ম্যাচে ভারতের বিপক্ষে সেঞ্চুরি করা জনি বেয়ারস্টো আজও সেঞ্চুরি করেছেন। ১০৬ রান করে আউট হন তিনি। অপর ওপেনার জ্যাসন রয় করেছেন ৬০ রান। অধিনায়ক ইয়ন মরগ্যানের ব্যাট থেকে এসেছে ৪২ রান। নিউজিল্যান্ডের বোলারদের মধ্যে ট্রেন্ট বোল্ট ২টি, ম্যাট হেনরি ২টি, জেমস নিশাম ২টি, টিম সাউদি; ১টি ও মিচেল স্যান্টনার ১টি করে উইকেট শিকার করেন।

লিগ পর্বে দুই দলেরই শেষ ম্যাচ এটি। দুই দলই জানে এই ম্যাচ জেতা মানে সেমিফাইনাল নিশ্চিত করে ফেলা। অবশ্য যে দলই হারুক, তাদের শেষ চারের আশা শেষ হয়ে যাবে এমন নয়। তবে, ইংল্যান্ড হারলে এবং পাকিস্তান শেষ ম্যাচে বাংলাদেশকে হারালে ইংলিশরা বাদ পড়বে। আবার নিউজিল্যান্ড যদি আজ হারে এবং পাকিস্তান তাদের শেষ ম্যাচে জয় পায় তাহলে পাকিস্তান ও নিউজিল্যান্ডের মধ্যে যারা নেট রান রেটে এগিয়ে থাকবে তারাই সেমিতে খেলবে। ইতোমধ্যে সেমিফাইনাল নিশ্চিত করেছে অস্ট্রেলিয়া ও ভারত।

চেস্টার-লি-স্ট্রিটে ইংল্যান্ড ব্যাটিংয়ে নেমে দারুণ সূচনা করে। দুই ওপেনার জনি বেয়ারস্টো ও জ্যাসন রয় ১২৩ রানের জুটি গড়েন। ১৯তম ওভারে নিশামের বলে স্যান্টনারের হাতে ধরা পড়েন রয়। এরপর ৭১ রানের জুটি গড়েন বেয়ারস্টো ও রুট।

৩১তম ওভারে ফিরে যান রুট। ট্রেন্ট বোল্টের করা এই ওভারের প্রথম বলে উইকেটরক্ষকের হাতে ধরা পড়েন তিনি। এর পরের ওভারেই ফিরে যান বেয়ারস্টো। ম্যাট হেনরির বলে বোল্ড হন তিনি। ৯৯ বলে ১৫টি চার ও ১টি ছক্কার সাহায্যে ১০৬ রান করেন বেয়ারস্টো। এর আগের ম্যাচে ভারতের বিপক্ষেও সেঞ্চুরি করেছিলেন বেয়ারস্টো।

বেয়ারস্টো ফিরে যাওয়ার পর বাটলারও দ্রুত ফিরে যান। ৩৫তম ওভারে বোল্টের বলে উইলিয়ামসনের হাতে ক্যাচ হন তিনি। ১২ বল খেলে তিনি করেন ১১ রান। বাটলার ফেরার পর ৩৪ রানের জুটি গড়েন মরগ্যান ও স্টোকস। দলীয় ২৪৮ রানে স্যান্টনারের বলে হেনরির হাতে ক্যাচ দিয়ে ফিরে যান স্টোকস। এরপর অধিনায়ক মরগ্যান ফিরে যান ৪২ রান করে। এরপর টেলএন্ডার ব্যাটসম্যানরা মিলে দলের স্কোরটা আরেকটু বাড়িয়ে দেন।

আজকের ম্যাচে একাদশে কোনো পরিবর্তন আনেনি ইংল্যান্ড। তবে, দুইটি পরিবর্তন এনেছে নিউজিল্যান্ড। একাদশে সুযোগ পেয়েছেন ম্যাট হেনরি ও টিম সাউদি। বাদ পড়েছেন লকি ফার্গুসন ও ইশ সোধি। ৮ ম্যাচ খেলে ১১ পয়েন্ট নিয়ে নিউজিল্যান্ড এখন পয়েন্ট টেবিলে তৃতীয় অবস্থানে আছে। সমান সংখ্যক ম্যাচ খেলে ১০ পয়েন্ট নিয়ে চতুর্থ অবস্থানে আছে স্বাগতিক ইংল্যান্ড।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

ইংল্যান্ড ইনিংস: ৩০৫/৮ (৫০ ওভার)

(জ্যাসন রয় ৬০, জনি বেয়ারস্টো ১০৬, জো রুট ২৪, জস বাটলার ১১, ইয়ন মরগ্যান ৪২, বেন স্টোকস ১১, ক্রিস ওয়েকস ৪, লিয়াম প্লানকেট ১৫*, আদিল রশীদ ১২, জফরা আর্চার ১*; মিচেল স্যান্টনার ১/৬৫, ট্রেন্ট বোল্ট ২/৫৬, টিম সাউদি ১/৭০, ম্যাট হেনরি ২/৫৪, কলিন ডি গ্র্যান্ডহোম ০/১১, জেমস নিশাম ২/৪১)।