গাজীপুরে মহাসড়কে থেমে থেমে যানজট | |

গাজীপুরে মহাসড়কে থেমে থেমে যানজট

ঈদে ঘরমুখো মানুষের চাপ বেড়ে যাওয়ায় এবং ধারণক্ষমতার বেশি গাড়ি চলার কারণে গাজীপুরে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে থেমে থেমে যানজট সৃষ্টি হয়েছে। এছাড়া ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে গাড়ির চাপ বেড়েছে, বেড়েছে বাসের অপেক্ষায় যাত্রীদের ভিড়। তবে মহাসড়কের বিভিন্ন পয়েন্টে অবস্থান নিয়ে কাজ করছে হাইওয়ে পুলিশ।

হাইওয়ে পুলিশ জানায়, সোমবার সকালে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের চান্দনা চৌরাস্তায় আলম এশিয়া পরিবহনের একটি বাস বিকল হলে প্রায় আধ ঘণ্টা যানবাহন চলাচলে বিঘ্ন ঘটে। পরে বিকল গাড়িটি রেকার দিয়ে সরিয়ে নিলে যানবাহন চলাচল স্বাভাবিক হয়। বেলা দুইটার দিকে গাজীপুরের অধিকাংশ কারখানা একযোগে ছুটি হলে পোশাক শ্রমিকরাও বাড়ি ফিরতে শুরু করেন। ফলে ঘরমুখো যাত্রীদের বাড়তি চাপ এবং ধারণ ক্ষমতার বেশি যানবাহন সড়কে চলাচল করায় ওই মহাসড়কের ভোগড়া বাইপাস থেকে চান্দনা চৌরাস্তা পর্যন্ত থেমে থেমে যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে। এছাড়া গাজীপুরা, মালেকের বাড়ি এবং টঙ্গীতে গাড়ির চাপ রয়েছে।

এছাড়া, ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের চন্দ্রায় ঘরমুখো মানুষের ভিড় বেড়েছে। শেষ সময়ে তারা বাসের জন্য অপেক্ষা করছেন বিভিন্ন টিকিট কাউন্টারে। অনেকে বাস না পেয়ে ট্রাক, পিকআপ যোগে গন্তব্যে পাড়ি দিচ্ছেন। জীবনের ঝুঁকি নিয়ে বাসের ছাদে চড়েছেন অনেকে। তবে গাড়ির চাপ থাকলে মহাসড়কে গাড়ি থেমে নেই। কিছুটা ভোগান্তি সহ্য করে প্রিয়জনদের কাছে ছুটছেন যাত্রীরা।

এদিকে, যানজট নিরসনে হাইওয়ে পুলিশ, মহানগর পুলিশ ও স্বেচ্ছাসেবকরা বিভিন্ন পয়েন্টে অবস্থান নিয়ে কাজ করছেন। চান্দনা চৌরাস্তায় পর্যবেক্ষণ টাওয়ার, কন্ট্রোল রুম স্থাপন করেছে মহানগর পুলিশ। যানজট নিরসনের পাশাপাশি শ্রমিকরা যেন নিরাপদে বাড়ি ফিরতে পারেন সেজন্য সব ধরনের ব্যবস্থা নেয়ার কথা জানিয়েছেন মহানগর পুলিশ কমিশনার আনোয়ার হোসেন। তিনি বলেন, মহাসড়কে যেন গাড়ি আটকে না থাকে সেজন্য সব ধরনের ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। ফলে গাড়ির চাপ থাকলেও কোনো যানজট নেই।