ভারতের প্রধান বিচারপতির বিরুদ্ধে যৌন হেনস্তার অভিযোগ

এক নারীকে যৌন হেনস্তার অভিযোগ, তাও আবার ভারতের প্রধান বিচারপতির বরুদ্ধে। অভিযোগকারী নারী দেশটির সুপ্রিম কোর্টেরই সাবেক এক সাবেক কর্মকর্তা। যদিও নারীর আনীত অভিযোগ অস্বীকার করেছেন প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ।

বিবিসি এক প্রতিবেদনে বলছে, গত বছরের অক্টোবর মাসে ঘটা দুটি যৌন হেনস্থা নিয়ে অভিযোগ করেছেন ওই নারী কর্মকর্তা। তবে বিচারপতি গগৈ এসব অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। যৌন নির্যাতনের ওপর নারীর করা হলফনামাটি সুপ্রিমকোর্টের বিচারপতিদের কাছে পাঠানো হয়েছে।
বিচারপতি গগৈ বলেন, ‘বিচার ব্যবস্থার স্থিতিশীলতা বিনষ্ট করার জন্যই এমন অভিযোগ করেছেন ওই নারী। আর এসব অভিযোগের জবাব দেওয়াও এক রকম নীচতা। আমি এত নিচে নামতে চাই না।’

হলফনামায় ওই বিবাহিত নারী বলেন, ‘গত ১০ এবং ১১ অক্টোবর বিচারপতি গগৈ নিজের বাড়ির অফিসকক্ষে তার সঙ্গে অশ্লীল আচরণ করেন। গগৈ তার কোমর জড়িয়ে তার সারা শরীরে হাত বুলাতে থাকেন এবং তাকে তার শরীরের সাথে চেপে ধরে থাকেন। তখন ওই নারী তাকে ধাক্কা দিয়ে ঘর থেকে বেরিয়ে আসেন।’

এ ঘটনার পর ওই নারীকে তিনবার বদলি করা হয়। সবশেষ গত ডিসেম্বর মাসে তাকে চাকরি থেকে বরখাস্ত করা হয়। এদিকে মহিলার স্বামী এবং ভাইকেও তাদের চাকরিতে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়েছে বলে হলফনামায় জানিয়েছে ওই নারী।