বঙ্গবন্ধুর স্মৃতি বিজড়িত ছবি ও চিঠি কে‌ন্দ্রে পাঠা‌নোর নি‌র্দেশ | |

বঙ্গবন্ধুর স্মৃতি বিজড়িত ছবি ও চিঠি কে‌ন্দ্রে পাঠা‌নোর নি‌র্দেশ

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশত বার্ষিকী উপলক্ষে তার ( বঙ্গবন্ধুর) স্মৃতি বিজড়িত চিঠি, ছবি এবং অন্যান্য তথ্য উপাত্ত কারো কাছে থাকলে, তা সংগ্রহ করে কেন্দ্রের কাছে পাঠাতে নির্দেশ দিয়েছেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ।

শনিবার রাজধানীর ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগের সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে সম্পাদকমণ্ডলীর সভা শেষে তিনি সাংবাদিকদের এই নির্দেশনার কথা জানান।

হানিফ বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু ১৯৪৭ এর পরে দেশের মানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠার জন্য সারাদেশের এক প্রান্ত থেকে অপর প্রান্তে ঘুরে বেরিয়েছেন। আন্দোলন সংগ্রাম করেছেন, সভা সেমিনার করেছেন। এছাড়াও তার কর্মকাণ্ড পরিচালনার সময় বিভিন্ন মানুষের সঙ্গে কথা বলেছেন, তাদের সঙ্গে থেকেছেন। বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষের সঙ্গে তার যে নিবিড় সম্পর্ক ছিল এই সমস্ত ঘটনাবলি বা স্মৃতিবিজড়িত তথ্য উপাত্ত যেন আমরা সংগ্রহ করতে পারি।

সেজন্য আমাদের সাংগঠনিক সম্পাদকরা জেলার সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককে নির্দেশনা দেবেন,  স্ব-স্ব জেলায় যদি এ রকম কোনো ঘটনা থাকে সেই তথ্য উপাত্ত সংগ্রহ করার জন্য। বঙ্গবন্ধু কথা বলেছেন, চলার পথে দেখা হয়েছে সেই তথ্য উপাত্ত থাকলেও সংগ্রহ করে আমাদের কেন্দ্রে পাঠানোর জন্য সিদ্ধান্ত হয়েছে।’

তি‌নি বলেন, ‘আরেকটি বিষয় ছিল বঙ্গবন্ধুর রাজনৈতিক জীবনের চলার পথে যদি কোনো ছবি থাকে, দুর্লভ ছবি থাকে যা এখনো আমাদের কাছে আসে নাই বা জাতীয় পর্যায়ে প্রকাশ হয়নি এমন যদি কোনো ছবি থাকে সেই ছবিগুলো পাঠানোর জন্য; সেগুলো সংগ্রহ করার সিদ্ধান্ত হয়েছে।’

হা‌নিফ ব‌লেন, ‘বঙ্গবন্ধু অত্যন্ত কর্মীবান্ধব ও সাধারণ জনগণের নেতা ছিলেন। তার জীবন থেকে আমরা দেখেছি, যখন জেলখানায় থাকতেন সেই সময় প্রায়ই সাধারণ কর্মীদের কাছে চিঠি লিখতেন। বঙ্গবন্ধুর ডায়েরি থেকে এই ধরনের অনেক তথ্য পাওয়া গেছে। বঙ্গবন্ধুর এমন কোনো চিঠি যদি কারো কাছে থাকে সেই দুর্লভ চিঠিগুলো সংরক্ষণ করার জন্য আমাদের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।’

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক, ডা. দীপু মনি, আব্দুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক আহমেদ হোসেন, বিএম মোজাম্মেল হক, দপ্তর সম্পাদক ড. আবদুস সোবহান গোলাপ।