ক্রিস্টাল মেকআপে চমক দেখান | |

ক্রিস্টাল মেকআপে চমক দেখান

ছোট কয়েকটি পাথরকুচি বা গ্লিটারিং স্টার… সাজের জগতে চমক ধরে রাখতে এদের জুড়ি মেলা ভার! অনেক মেকআপেই কোয়ার্টজ, রোজ কোয়ার্ট‌জ ইত্যাদি ব্যবহার হয়ে থাকে। বিভিন্ন ধরনের ক্রিস্টাল ব্যবহার করে কত ধরনের আই মেকআপ করা যায়, সেটাই এ বার জানার পালা…

বিন্দুতেই সিন্ধু: সোনালি, রূপালি বা গোলাপি রংয়ের ছোট ছোট অনেক ক্রিস্টাল নিয়ে নিন। চোখের উপরে ও নীচ বরাবর আই লাইনার না লাগিয়ে এই ক্রিস্টাল লাগিয়ে ফেলুন। তবে সঠিক ব্যবধানে।

তারকাখচিত: গ্লিটারিং স্টার, হার্টস কিনতে পেয়ে যাবেন বাজারে। চোখের মেকআপ সেরে নিয়ে ওপরের আইলিডে অনেক তারা একসঙ্গে লাগিয়ে নিন। তবে এক জায়গায় যাতে তা জমে না থাকে, সে দিকে খেয়াল রাখুন।

স্ফটিক দ্যুতি: নীল, সবুজ, কমলা রঙের ক্রিস্টাল শেডের আইশ্যাডো পাওয়া যায়। চোখের ওপরে আইশ্যাডো লাগানোর মতোই লাগিয়ে নিতে পারেন এই ক্রিস্টাল শেড। তবে এই শেড খুব ভারী হয় তাই ক্রিস্টাল শেডের আইশ্যাডো লাগালে তার সঙ্গে ঠোঁটের মেকআপ বা ব্লাশার হতে হবে বেশ হালকা।

স্নিগ্ধ উপস্থিতি: একসঙ্গে অনেক ক্রিস্টাল ব্যবহার করতে না চাইলে পুরো চোখে মেকআপ করার পরে চোখের শেষে মাত্র দু’টি করে ক্রিস্টাল বসিয়ে নিতে পারেন। অনেকে আবার চোখের দু’প্রান্তে অর্থাৎ নাকের দিকে ও কানের দিকে একটি করে ক্রিস্টাল বসিয়ে নেন।

আঁধারে আলো: চোখের উপরের পাতায় স্বাভাবিক ভাবেই কালো আইলাইনার লাগিয়ে নিন। তার উপরে কয়েকটি রুপোলি ক্রিস্টাল বসিয়ে নিলে ভাল দেখাবে।

আঁখিকোণে: চোখের ঠিক উপরে ক্রিস্টাল না লাগিয়ে ক্রিজে ক্রিস্টাল লাগিয়ে নিন। আই ব্রো বোনের ঠিক নীচে পরপর ক্রিস্টাল লাগান। এ ক্ষেত্রে চোখের উপরে স্বাভাবিক মেকআপ করতে পারেন।

যেভাবে করবেন

ক্রিস্টাল মেকআপ খুব হেভি মেকআপ। যেখানে যাবেন, সেই জায়গা বুঝেই এই ধরনের মেকআপ করা ভালো। তবে এই ধরনের মেকআপ করার আগে কয়েকটি বিষয় মাথায় রাখতে হবে।

• প্রথমে ভ্রু ট্রিম করতে হবে। আই ব্রো প্লাক করা না থাকলেও তা ব্রাশ করে সঠিক শেপ দিয়ে নিতে হবে।

• চোখের মেকআপ ভালোভাবে করে নিতে হবে। সবশেষে চোখের চারপাশে ক্রিস্টাল লাগাবেন।

• ক্রিস্টাল লাগানোর জন্য মেকআপ গ্লু ব্যবহার করতে হবে। এই ধরনের গ্লুতে ত্বকের কোনো সমস্যা হচ্ছে কি না, হাতে লাগিয়ে আগে দেখে নিন।

• সকলের চোখে সব রকম ক্রিস্টাল মানায় না। তাই নিজের চোখে কী ধরনের ক্রিস্টাল মানাবে, সেটা দেখে নিন। প্রয়োজনে যে পার্লারে এই ধরনের মেকআপ হয়, তাদের সঙ্গে কথা বলেও পরামর্শ নিতে পারেন।

• চোখের আকার অনুযায়ী ক্রিস্টালের ঘনত্ব বাড়বে বা কমবে। একই সঙ্গে ক্রিস্টালের আকারও নির্ভর করবে। ছোট চোখের উপরে খুব বড় আকারের ক্রিস্টাল ভাল দেখায় না। তাই সে ক্ষেত্রে ছোট ক্রিস্টালই বাছতে হবে।

• চোখে ক্রিস্টাল মেকআপ করলে মুখের বাকি মেকআপ হালকা হবে। ঠোঁটে নুড, হালকা গোলাপি, মভ ঘেঁষা লিপস্টিক ব্যবহার করুন। ব্লাশারও হবে হালকা শেডের।

• পোশাকও মানানসই হতে হবে। পোশাকে গ্লিটার থাকলে এই ধরনের মেকআপ ভাল লাগে। পোশাকের রংয়ের সঙ্গেও ক্রিস্টালের রং যেন মানানসই হয়।

এ ছাড়াও ঠোঁটের উপরে বা পাশে, গালে, সিঁথিতেও ক্রিস্টাল ব্যবহার করতে পারেন। এখন আর শুধু গয়নায় সীমাবদ্ধ নেই ক্রিস্টালের ব্যবহার। সাজপাঠেও এই ক্রিস্টাল কুচিই কিন্তু আপনার লুক পালটে দিতে পারে নিমেষে।