মাশরাফিতে অসহায় কুমিল্লা

টানা চার ওভারের স্পেলে কুমিল্লার টপ অর্ডার গুঁড়িয়ে দিলেন মাশরাফি বিন মুর্তজা। ধুঁকতে ধুঁকতে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স গুটিয়ে গেল ৬৩ রানেই। কার্যত ম্যাচ শেষ হয়ে গিয়েছিল সেখানেই। ব্যাটসম্যানরা সারলেন শুধু জয়ের আনুষ্ঠানিকতা।

মিরপুরে মঙ্গলবার মাশরাফির টি-টোয়েন্টি ক্যারিয়ার সেরা বোলিংয়ের ম্যাচে কুমিল্লাকে ৯ উইকেটে হারিয়েছে রংপুর রাইডার্স। আগে ব্যাট করতে নেমে ১৬.২ ওভারে বিপিএলের চতুর্থ সর্বনিম্ন ৬৩ রানে অলআউট হয়ে যায় কুমিল্লা। রংপুর সেটি পেরিয়ে গেছে ১২ ওভারেই।

হার দিয়ে বিপিএল শুরুর পর টানা দুই ম্যাচ জিতল বর্তমান চ্যাম্পিয়ন রংপুর রাইডার্স। জয়ে শুরুর পর দ্বিতীয় ম্যাচে হার সঙ্গী করল তৃতীয় আসরের চ্যাম্পিয়ন কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স।

টস হেরে ব্যাট করতে নেমে প্রথম ওভারে মাশরাফিকে একটি চার হাঁকিয়ে ভালো শুরুর ইঙ্গিত দিয়েছিলেন এভিন লুইস। উদ্বোধনী জুটি ছুঁয়েছিল দুই অঙ্ক। কিন্তু খানিক বাদেই ধ্বংসস্তূপে পরিণত হয় কুমিল্লা। বিনা উইকেটে ১০ থেকে তাদের স্কোর হয়ে যায় ৫ উইকেটে ১৮! ৮ রানেই নেই ৫ উইকেট!

টানা চার ওভারের স্পেলে মাশরাফি প্রথম ওভারে শুধু উইকেট পাননি। পরের তিন ওভারেই নিয়েছেন উইকেট। এর মধ্যে তৃতীয় ওভারে দুটি।

শুরুটা তামিম ইকবালকে দিয়ে। দ্বিতীয় ওভারে মাশরাফির স্লোয়ার উড়াতে গিয়ে মিড অনে সহজ ক্যাচ দিয়ে ফেরেন বাঁহাতি ব্যাটসম্যান। ডানহাতি পেসার নিজের পরের ওভারে ২ রানে নিয়েছেন ২ উইকেট। দ্বিতীয় বলে রবি বোপারার দারুণ এক ক্যাচে ফেরেন ইমরুল কায়েস। পঞ্চম বলে ছক্কা হাঁকাতে গিয়ে লং অনে নাজমুল ইসলাম অপুর হাতে ধরা পড়েন লুইস।

কোটার শেষ ওভারে মাশরাফি কোনো রানই দেননি। এই ওভারে নিয়েছেন কুমিল্লার অধিনায়ক স্টিভ স্মিথের উইকেট। লেংথ বল ইন-সাইড আউট করে খেলতে গিয়ে মিড অফে ক্যাচ দেন স্মিথ। এর আগের ওভারে শোয়েব মালিককে ফেরান শফিউল ইসলাম।

২০১৬ সালে এই রংপুরের বিপক্ষেই বিপিএলের সর্বনিম্ন ৪৪ রানে গুটিয়ে গিয়েছিল খুলনা টাইটান্স। ১৮ রানে ৫ উইকেট হারানোর পর কুমিল্লাকে সেই লজ্জা উঁকি দিচ্ছিল। ৩৯ রানে ৭ উইকেট হারিয়ে সেই সম্ভাবনা জোরালো হয়েছিল আরো।

শহীদ আফ্রিদির ব্যাটে লজ্জা এড়িয়েছে তৃতীয় আসরের চ্যাম্পিয়নরা। তবে ৮ রানের মধ্যে শেষ ৩ উইকেট হারিয়ে বিপিএলের চতুর্থ সর্বনিম্ন রানের রেকর্ড ঠিকই গড়ে তারা। কুমিল্লার আগের সর্বনিম্ন ছিল ৯৬, ২০১৭ সালে ঢাকা ডায়নামাইটসের বিপক্ষে।

আফ্রিদির ১৮ বলে ২৫ ছাড়া দুই অঙ্কে যেতে পারেননি কুমিল্লার আর কেউই! বাকি সবার রান যেন টেলিফোনের একেকটি ডিজিট।

চার ওভারে একটি মেডেনসহ ১১ রানে ৪ উইকেট নেন মাশরাফি। টি-টোয়েন্টিতে তার আগের সেরা বোলিং ছিল ১৯ রানে ৪ উইকেট, ২০১২ সালে বেলফাস্টে বাংলাদেশের হয়ে আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে। আর বিপিএলে মাশরাফির আগের সেরা বোলিং ছিল ১৬ রানে ৩ উইকেট, ২০১৬ সালের আসরে এই মিরপুরেই কুমিল্লার হয়ে খুলনার বিপক্ষে।

কুমিল্লার শেষ ৩টি উইকেট নেন বাঁহাতি স্পিনার অপু, ২০ রানে। শফিউল ৮ রানে ২টি ও ফরহাদ রেজা নেন একটি উইকেট।

সময়মতো অনাপত্তিপত্র না আসায় রংপুরের প্রথম দুই ম্যাচে খেলতে পারেননি ক্রিস গেইল। এদিন প্রথমবারের মতো মাঠে নেমে অবশ্য ভালো করতে পারেননি। ১ রান করে আবু হায়দার রনি অফ স্টাম্পের বাইরের বলে শট খেলতে গিয়ে উইকেটরক্ষককে ক্যাচ দেন ক্যারিবীয় তারকা।

দলীয় ১৪ রানে গেইলকে হারালেও রাইলি রুশোকে সঙ্গে নিয়ে বাকি কাজটা সেরেছেন মেহেদী মারুফ। দুজনের অবিচ্ছিন্ন ৫৩ রানের জুটিতে রংপুর ম্যাচ জিতেছে ৪৮ বাকি থাকতেই। মারুফ ৩৯ বলে ৩৬ ও  রুশো ২৮ বলে ২০ রানে অপরাজিত ছিলেন।