ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে যানজট, ভোগান্তিতে যাত্রীরা | |

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে যানজট, ভোগান্তিতে যাত্রীরা

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের মেঘনা টোলপ্লাজা থেকে দাউদকান্দির বারপাড়া পর্যন্ত প্রায় ২০ কি.মি. সড়কে যানজট প্রকট আকার ধারণ করেছে। ফলে যানবাহনে বসেই রাত্রিযাপন করেছেন বিপুলসংখ্যক যাত্রী।

এদিকে রাতের ভোগান্তির পর বুধবার ভোর থেকে মহাসড়কের কুমিল্লার দাউদকান্দি অংশে অন্তত ৬/৭ কিলোমিটার এবং মেঘনা সেতুর উভয় পাশে অন্তত ২০ কিলোমিটার এলাকা জুড়ে যানজট দেখা দিয়েছে।

হাইওয়ে পুলিশ সূত্রে জানা যায়, নির্মাণাধীন দ্বিতীয় গোমতী, মেঘনা ও কাঁচপুর সেতুর কারণে এ মহাসড়কে যানজট নিত্যদিনের ঘটনা। মঙ্গলবার রাত থেকে মেঘনা সেতুর উভয় পাশে অন্তত ২৫ কিলোমিটার যানজট ছড়িয়ে পড়ে।

স্থানীয় সূত্র জানায়, মহাসড়কের এই অংশে মালবাহী যানবাহনের জন্য প্রতিনিয়তই যানজট লেগে থাকে। গোমতী ও মেঘনা সেতু এলাকায় টোল আদায় করতে গিয়ে টোল আদায়কারী কর্মকর্তাদের সঙ্গে চালক-হেলপারদের কথা কাটাকাটিতে কালক্ষেপণের মাত্রা আরো বেড়ে যায়। ফলে তীব্র যানজটে পড়ে কুমিল্লা থেকে ঢাকা যেতে ৮/৯ ঘণ্টা সময় লাগে। যেখানে যানজট না থাকলে ঢাকায় পৌঁছাতে দেড় থেকে দুই ঘণ্টা সময় লাগে।

হাইওয়ে পুলিশের দাউদকান্দি থানার ওসি আবুল কালাম জানান, যানজট স্থায়ী হচ্ছে না। গোমতী ও মেঘনা সেতু এলাকায় টোল আদায় ও বিকল্প সেতু নির্মাণের কারণে যানবাহন চলাচল নিয়ন্ত্রণ করতে গিয়ে যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে। যানজট নিরসনে হাইওয়ে পুলিশ কাজ করছে।