এইডস রোগী ডুবে মরায় লেকের পানি বদল! | |

এইডস রোগী ডুবে মরায় লেকের পানি বদল!

ভারতের কর্ণাটকে এইচআইভি আক্রান্ত মহিলা লেকের পানিতে ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যা করায় পুরো লেকের পানি বদলে ফেলছে স্থানীয় কর্তৃপক্ষ। চলতি সপ্তাহে কর্ণাটকের হুব্বালি জেলার মোরাব গ্রামের লেকে ওই মহিলা মারা যান। হাফিংটন পোস্ট, টাইমস অব ইন্ডিয়া।

জানা যায়, গ্রামের মাঝেই রয়েছে ৩৬ একরের একটি বিশাল লেক। পুরো গ্রাম এই লেকের পানির উপর নির্ভরশীল। লেকের পানি গ্রামবাসীরা খাওয়ার জন্যও ব্যবহার করেন।

সপ্তাহখানেক আগে এই লেকে ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যা করেছিলেন গ্রামের এক মহিলা। গত ২৯ নভেম্বর মহিলার দেহ লেকের পানিতে ভাসতে দেখেন কয়েক জন গ্রামবাসী। দ্রুত খবরটা ছড়িয়ে পড়ে গোটা গ্রামে। সবাই জানত ওই মহিলা এইডস-এ আক্রান্ত। ফলে তাঁর দেহ লেকের পানিতে ভাসতে দেখে গ্রামবাসীদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে।

মূলত মহিলার শরীরে বাসা বাধা জীবাণুই গ্রামবাসীদের মনে আতঙ্কের কারণ তৈরি করে। তাঁদের ধারণা, ওই মহিলার শরীরে থাকা এইডস-এর জীবাণু লেকের পানিতে মিশে গিয়েছে। ফলে সেই পানি দূষিত হয়েছে। কোনও ভাবেই ওই পানি আর পানের যোগ্য নয় বলেই মনে করছেন তাঁরা।

ঘটনার কথা জানতে পেরেই, জেলা পঞ্চায়েত সভাপতি ঘটনাস্থলে যান এবং গ্রামবাসীদের বোঝানোর চেষ্টা করেন। এভাবে পানি নষ্ট করলে পরবর্তীতে সমস্যা হতে পারে বলেও বোঝান তিনি। কিন্তু গ্রামবাসীরা তাঁদের বক্তব্যে অনড়।

শেষ পর্যন্ত, জেলা কর্তৃপক্ষ ২০ ডিসেম্বরের মধ্যে গোটা লেকের পানি পালটে ফেলার আশ্বাস দেয়। ইতোমধ্যে পানি পালটানোর কাজও শুরু হয়ে গিয়েছে।