অভিযোগ গুরুত্বের সঙ্গে দেখবেন, কর্মকর্তাদের সিইসি | |

অভিযোগ গুরুত্বের সঙ্গে দেখবেন, কর্মকর্তাদের সিইসি

নির্বাচনের মাঠে বিভিন্ন পক্ষ থেকে যেসব অভিযোগ আসবে তা গুরুত্বের সঙ্গে বিবেচনার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নুরুল হুদা। ইলেক্টোরাল ইনকোয়ারি কমিটির সদস্যদের নির্দেশ দিয়ে সিইসি বলেছেন, ‘ভোট গ্রহণের সময় ভোটারদের থেকে যেকোনো অভিযোগ আসুক তা সুষ্ঠুভাবে দেখতে হবে।’ তবে মিথ্যা তথ্য দিলে সংশ্লিষ্টদের বিচার হবে বলে জানান তিনি।

বুধবার নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ে ইলেক্টোরাল ইনকোয়ারি কমিটির সদস্যদের ব্রিফ অনুষ্ঠানের উদ্বোধনকালে সিইসি এসব নির্দেশনা দেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন নির্বাচন কমিশনার মাহবুব তালুকদার, রফিকুল ইসলাম, বেগম কবিতা খানম, ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) শাহাদাত হোসেন ও ইসি সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ।

ইলেক্টোরাল কমিটির সদস্যদের উদ্দেশে সিইসি বলেন, ‘সম্পূর্ণ শক্তি দিয়ে অবস্থান নিয়ে আপনারা নির্বাচনের মাঠে কাজ করবেন। জেলায় যারা দায়িত্ব পালন করবেন তারা মাঠে সমস্যার মুখোমুখি হবেন, প্রার্থীদের মুখোমুখি হবেন, আচরণবিধি ভঙ্গকারীদের মুখোমুখি হতে হবে। এটা একটা অনন্য অভিজ্ঞতা। আর এই দায়িত্ব আপনাদের ওপর অর্পিত হয়েছে। সেটা ভালোভাবে দেখভাল করবেন। তাহলে মানুষ আপনাদের ওপর আস্থা রাখবে। তখন আর ঢাকায় নির্বাচন অফিসে শতশত অভিযোগ আসবে না। আমরা প্রতিদিন শত শত অভিযোগ পাই। অভিযোগগুলো আমাদের এখানে আসার কথা ছিল না, কারণ আপনারা সেখানে রয়েছেন। আমরা এসব অভিযোগ আপনাদের কাছে পাঠিয়ে দেব। কিন্তু উচিত ছিল অভিযোগগুলো সরাসরি আপনাদের কাছে যাওয়া; তা যাচ্ছে না।’

নুরুল হুদা বলেন, ‘যারা এই দেশের প্রজাতন্ত্রের কর্মকর্তা-কর্মচারী তাদের ওপর জাতীয় সংসদ নির্বাচনের দায়িত্ব কোনো না কোনোভাবে অর্পিত হয়েছে। তাই আপনারা আমাদের অংশিদার। আর সেটায় আমাদের জন্য একটা স্বস্তির জায়গা।’

সিইসি বলেন, ‘আরপিওর এই ধারা সংশোধনের উদ্দেশ্য ছিল প্রতিটি মানুষ প্রতিটি সমস্যা নিয়ে যাতে সহজেই আপনাদের কাছাকাছি যেতে পারে। এখানে ওখানে সমস্যা নিয়ে ছোটাছুটি না করে আপনারা তাদের সব সমস্যার সমাধান দেবেন। ২৫ নভেম্বর ৩০০ আসনের মধ্যে ১২২টি জায়গায় এরিয়া ভাগ করে ইলেক্টোরাল ইনকোয়ারি কমিটি করে দেওয়া হয়। যেখানে মানুষ গিয়ে সমস্যার কথা বলতে পারবে। ১২২টি বাদ দিলাম সেখানে ১০০টি তদন্ত করার প্রত্যাশা ছিল। কিন্তু ২২টিও হয়নি। এর কারণ আপনারা এখন পর্যন্ত প্রস্তুতি নিয়ে গুছিয়ে উঠতে পারেননি। তাই কী দায়িত্ব কী করণীয় সেটা ভালো করে জেনে নিন। আশা করব আপনারদের ওপর যে দায়িত্ব অর্পিত হয়েছে তা সুষ্ঠুভাবে পালন করবেন।’