সূচকের উত্থানে সপ্তাহ পার | |

সূচকের উত্থানে সপ্তাহ পার

সপ্তাহের শেষ কার্যদিবস বৃহস্পিতবার (০৮ নভেম্বর) সূচকের ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতায় দেশের পুঁজিবাজারে লেনদেন হয়েছে। বস্ত্র, ওষুধ ও রসায়ন এবং আর্থিক প্রতিষ্ঠান খাতের প্রায় সব শেয়ারের উত্থান হয়েছে।

এর ফলে সূচকের পাশাপাশি বেড়েছে লেনদেন ও বেশিরভাগ কোম্পানির শেয়ারের দাম। এর ফলে গত সপ্তাহের বুধবার থেকে-চলতি সপ্তাহের মঙ্গলবার পর্যন্ত মোট ৫দিন পর বুধ ও বৃহস্পতিবার দুদিন সূচক বাড়লো।

বাজার সংশ্লিষ্টরা বলছেন, ইনভেস্টমেন্ট করপোরেশন অব বাংলাদেশের (আইসিবি) ২ হাজার কোটি টাকার ফান্ডের অর্থ পুঁজিবাজারে বিনিয়োগ শুরু করার পাশাপাশি চীনা কনসোটিয়ামের অর্থও পুঁজিবাজারে বিনিয়োগ শুরু হয়েছে। এর ফলে বাজারে ইতিবাচক প্রবণতায় লেনদেন হয়েছে।

বৃহস্পতিবার সূচকের ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতায় দিনের লেনদেন শুরু হয়ে চলে সোয়া ১১টা পর্যন্ত। এরপর দিন শেষে পর্যন্ত লেনদেন হয় সূচকের ওঠানামার প্রবণতায়। ফলে দিন শেষে দেশের প্রধান পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) সূচক বাড়ে ১৬ পয়েন্ট। অপর বাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সূচক বাড়ে ৩৪ পয়েন্ট।

ডিএসই’র তথ্যমতে, বৃহস্পতিবার এ বাজারে ১৫ কোটি ২ লাখ ৪ হাজার ৪৫৮টি শেয়ারের হাতবদল হয়েছে। এতে লেনদেন হয়েছে ৫৯৩ কোটি ৭০ লাখ ২ হাজার টাকা। এর আগের দিন লেনদেন হয়েছিলো ৪৮৪ কোটি ৪৮ লাখ ৭৮ হাজার টাকা। তার আগের দিন লেনদেন হয়েছিলো ৪৪০ কোটি ৩ লাখ ৬ হাজার টাকার।

এদিন ডিএসই’র প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ১৬ দশমিক ৮৯ পয়েন্ট বেড়ে পাঁচ হাজার ২৫৯ পয়েন্টে অবস্থান নেয়। অন্য দুই সূচকের মধ্যে ডিএসইএস ইনডেক্স ২ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান নেয় ১ হাজার ২১০ পয়েন্টে।

এছাড়া ডিএস-৩০ ইনডেক্স ৫ পয়েন্ট বেড়ে দাঁড়িয়েছে এক হাজার ৮৫৯ পয়েন্ট। ডিএসইতে লেনদেন হওয়া কোম্পানির মধ্যে দাম বেড়েছে ১৫৮টির, কমেছে ১৩৫টির ও অপরিবর্তিত রয়েছে ৪৩টি কোম্পানির শেয়ারের দাম।

এদিকে সিএসইতে সার্বিক সূচক ৩৪ পয়েন্ট বেড়ে ১৬ হাজার ১০১ পয়েন্টে অবস্থান করছে। বাজারে লেনদেন হওয়া কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের মধ্যে দাম বেড়েছে ১২৬টির, কমেছে ৯২টির এবং ২৩টি কোম্পানির শেয়ার অপরিবর্তিত রয়েছে।

এ বাজারে লেনদেনের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ২৫ কোটি ৪৩ লাখ ৬৩ হাজার টাকা। এর আগের দিন লেনদেন হয়েছিলো ২১ কোটি ৯৩ লাখ ৬৩ হাজার ৪০২ টাকা।