সবজিতে স্বস্তি, কমেছে ব্রয়লার মুরগীর দাম | |

সবজিতে স্বস্তি, কমেছে ব্রয়লার মুরগীর দাম

স্বস্তি ফিরেছে রাজধানীর কাঁচাবাজারে। শীতকালীন সবজির সরবরাহ বাড়ায় বাজারে প্রায় সব ধরনের সবজির দামই কমতে শুরু করেছে। তবে এখনো টমেটোর দাম কমেনি। দেশীয় পাকা টমেটো পুরোদমে না ওঠায় এখনো বেশি দামে ভারতীয় আমদানি করা টমেটো বিক্রি হচ্ছে। এছাড়া নতুন আলুর দামও অনেকটাই বেশি।

ভোক্তাদের জন্য সুখবর রয়েছে ব্রয়লার মুরগী, ডিম ও পাম অয়েলের দামে। এ তিনটি পণ্যের দাম গত সপ্তাহের তুলনায় কমতির তালিকায় রয়েছে। শুক্রবার রাজধানীর কাওরানবাজার, শান্তিনগরবাজার ও তুরাগ এলাকার কামারপাড়া ও নতুন বাজারে গিয়ে নিত্যপণ্যের বাজারের এই চিত্র দেখা যায়।

ব্যবসায়ীরা বলেছেন, বাজারে দেশীয় পাকা টমেটো পুরোদমে আসা শুরু হয়নি। যে কারণে টমেটোর দাম কমেনি। তবে আশা করছি সপ্তাহখানেকের মধ্যে টমেটোর দাম কমে আসবে। তারা বলেন, নতুন আলুর প্রতি ভোক্তাদের চাহিদা বেশি। এ আলুর ভর্তা খেতে সুস্বাদু হওয়ায় মৌসুমের শুরুতে দাম একটু বেশিই থাকে। তবে সরবরাহ বাড়লে দাম কমে আসবে।

বাজারে বিভিন্ন ধরনের সবজির মধ্যে বাঁধাকপি ১৫ থেকে ৩০ টাকা, ফুলকপি ২০ থেকে ৩৫ টাকা, শিম ও বেগুন ৩০ থেকে ৪০ টাকা, মুলা ২০ থেকে ২৫ টাকা, গাজর ৫০ থেকে ৬০ টাকা, ভারতীয় পাকা টমেটো ৭০ থেকে ৮০ টাকা, দেশি পাকা টমেটো ১১০ থেকে ১২০ টাকা, কাঁচা টমেটো ৪০ থেকে ৫০ টাকা, নতুন আলু ৬০ টাকা, পুরনো আলু ২৫ টাকা, কাঁচামরিচ ৩০ থেকে ৪০ টাকা, দেশি পেঁয়াজ ২৫ থেকে ৩০ টাকা ও আমদানিকৃত পেঁয়াজ ২৫ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। এছাড়া শীতের অন্যতম সবজি লাউ আকারভেদে প্রতিটি ৩০ থেকে ৪০ টাকা, কাঁচকলার হালি ১৫ থেকে ২০ টাকা, পালং ও লাল শাকের আঁটি ১০ থেকে ১৫ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

এদিকে সবজির পাশাপাশি দাম কমার তালিকায় রয়েছে ব্রয়লার মুরগী, ডিম ও পাম অয়েল। সরকারের বিপণন সংস্থা ট্রেডিং কর্পোরেশন অব বাংলাদেশও (টিসিবি) তাদের নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের খুচরা বাজারদরের তালিকায় পণ্য তিনটির দাম কমার তথ্য দিয়েছে।

বাজারে প্রতি কেজি ব্রয়লার মুরগী ১১০ থেকে ১২০ টাকা, লাল ডিমের ডজন ৯০ টাকা, খোলা পাম অয়েল ৬০ থেকে ৬৬ টাকা ও পাম সুপার ৬৬ থেকে ৭০ টাকা লিটার দরে বিক্রি হয়। যা গত সপ্তাহে ছিল ব্রয়লার মুরগী ১২০ থেকে ১৩৫ টাকা, লাল ডিমের ডজন ৯৫ টাকা, খোলা পাম অয়েল ৬৪ থেকে ৬৮ টাকা ও পাম সুপার ৬৮ থেকে ৭২ টাকা।

মাংসের মধ্যে গরু ৪৮০ থেকে ৫০০ টাকা ও খাসীর মাংস ৭০০ থেকে ৭৫০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হয়। এছাড়া বিভিন্ন ধরনের মাছের মধ্যে চাষের পাঙ্গাস ১৬০ থেকে ১৮০ টাকা, কৈ ১৫০ থেকে ১৮০ টাকা, তেলাপিয়া ১৪০ থেকে ১৬০ টাকা, ট্যাংরা ৪০০ থেকে ৬০০ টাকা, শিং ৪০০ থেকে ৫৫০ টাকা, পাবদা ৪০০ থেকে ৬০০ টাকা, চিংড়ি ৫০০ থেকে ৮০০ টাকা ও ৫’শ থেকে ৬’শ গ্রাম ওজনের ইলিশ ৪৫০ থেকে ৫০০ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে।