‘১৯৯১ সালে সাবমেরিন কেবলে যুক্ত হওয়ার সুযোগ নষ্ট করে বিএনপি’ | |

‘১৯৯১ সালে সাবমেরিন কেবলে যুক্ত হওয়ার সুযোগ নষ্ট করে বিএনপি’

এক সময় বাজেট করতে গেলেই বিদেশে হাত পাততে হতো কিন্তু এখন আর দেশের বাইরে হাত পাততে হয় না বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। রোববার (২১ অক্টোবর) সকালে গণভবনে মোবাইল নম্বর পোর্টেবিলিটি (এমএনপি) সার্ভিসের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, মানুষকে ট্যাক্স দিতেই হবে। সব ট্যাক্সতো মাফ করা যাবে না। জনগণ ট্যাক্স দিচ্ছেন বলেই আজ আমাদের বাজেট ৬০ গুণ বৃদ্ধি পেয়েছে। আমরা নিজেদের টাকায় নিজেরা চলতে পারছি। আগে বাজেট মানেই বিদেশে হাত পাততে হতো এখন কিন্তু আর হাত পাততে হয় না। হাত পেতে নয়, ভিক্ষা চেয়ে নয় নিজেদের পায়ে দাঁড়িয়ে চলতে হবে। এটা সম্মানের। জাতির পিতার যে স্বপ্ন ছিলো দেশকে নিয়ে সেই স্বপ্ন বাস্তবায়নের জন্যই আমরা কাজ করে যাচ্ছি।

১৯৯১ সালে বিনা পয়সায় সাবমেরিন কেবলে যুক্ত হওয়ার সুযোগ বাংলাদেশ হারিয়েছেন বলে জানান প্রধানমন্ত্রী।

তিনি বলেন, বিনাপয়সায় সাবমেরিন কেবলে যুক্ত হওয়ার প্রস্তাব পেয়েছিলো বাংলাদেশ। কিন্তু তখন খালেদা জিয়ার সরকার তা প্রত্যাখান করল। আমি খুবই অবাক হয়েছি। একসময় আমাদের দেশের মানুষ কম্পিউটার কি বা মোবাইল কি জানতো না। কল রিসিভ করলেও ১০ টাকা দিতে হতো। আমাদের সরকার এসে ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার কাজ শুরু করেছিলো। এখন মানুষের হাতে দুইটা তিনটা করে মোবাইল ফোন।

প্রধানমন্ত্রী আরো বলেন, মাত্র ১০ বছরের মধ্যে বাংলাদেশের যে ব্যাপক পরিবর্তন হয়েছে তা সম্ভব হয়েছে জনগণ ও তরুণ প্রজন্ম নৌকায় ভোট দিয়েছিলো বলেই। তাঁরা বুঝতে পেরেছিলেন আওয়ামী লীগ সরকার গঠন করলেই দেশের উন্নয়ন হবে। আমাদের পরিকল্পনা হচ্ছে ২৮টি হাইট্যাক পার্ক গড়ে তোলা। ইতোমধ্যে দুইটি পার্ক তৈরি হয়েও গিয়েছে। কালিয়াকুরে বঙ্গবন্ধু হাইটেক সিটি হবে। যতো বেশি বিনিয়োগ হবে ততো বেশি কর্মসংস্থান বাড়বে। তরুণদের আর পরমুখাপেক্ষী হয়ে থাকতে হবে না।

গত ১০ বছরে তথ্য প্রযুক্তি খাতে দেশ এগিয়ে গিয়েছে তার একটি প্রামাণ্য চিত্রপ্রদর্শন করা হয় অনুষ্ঠানে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানটির সভাপতিত্ব করেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তফা জব্বার। এ সময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, তথ্য ও যোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।