বাণিজ্য বাড়াতে একমত বাংলাদেশ-ব্রাজিল | |

বাণিজ্য বাড়াতে একমত বাংলাদেশ-ব্রাজিল

চেম্বার গঠন ও উভয় দেশের বাণিজ্য বাড়ানোর জন্য এফটিএ স্বাক্ষরের বিষয়ে একমত বাংলাদেশ ও ব্রাজিল । ব্রাজিল-বাংলাদেশ চেম্বার গঠনের পরে উভয় দেশের ব্যবসায়ীরা বাণিজ্যে উৎসাহিত হবেন, পারস্পরিক যোগাযোগ বাড়বে বলে মনে করেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ।

মন্ত্রী বলেন, ব্রাজিল বাংলাদেশের তৈরি পোশাকের একটি সম্ভাবনাময় বাজার। কিন্তু অধিক ট্যারিফের কারণে ব্রাজিলে আশানুরূপ রপ্তানি করতে পারছে না বাংলাদেশ। সেখানে পণ্য রপ্তানি করতে প্রায় ৩৫ শতাংশ হারে ট্যারিফ প্রদান করতে হয় বলে জানিয়েছেন বাণিজ্যমন্ত্রী।

রবিবার সচিবালয়ে ঢাকায় নিযুক্ত ব্রাজিলের রাষ্ট্রদূত জোয়াত্ত তাবাজারা ডি অরিভেরা জুনিয়রের সাথে মতবিনিময় করে সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে এসব কথা বলেন।

তোফায়েল আহমেদ বলেন, এফটিএ স্বাক্ষরের মাধ্যমে বাংলাদেশ ব্রাজিলের কাছ থেকে বাণিজ্য সুবিধা পেতে পারে। তখন ব্রাজিলে বাংলাদেশের তৈরি পোশাক রপ্তানি বাড়বে।

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ ব্রাজিল থেকে চিনি, গম, তুলাসহ বিভিন্ন পণ্য আমদানি করে থাকে। বর্তমান বাণিজ্য ব্রাজিলের পক্ষে। গত বছর বাংলাদেশ ব্রাজিলে পণ্য রপ্তানি করেছে ১৭৬.৮৯ মিলিয়ন মার্কিন ডলার মূল্যের পণ্য, একই সময়ে আমদানি করেছে ১৫২০.৬১ মিলিয়ন মার্কিন ডলার মূল্যের পণ্য। এফটিএ স্বাক্ষর হলে বাংলাদেশ বেশি রপ্তানি করতে পারবে।

ব্রাজিলের রাষ্ট্রদূত সাংবাদিকদের উদ্দেশ্য বলেন, বাংলাদেশ ব্রাজিলের বন্ধু রাষ্ট্র। দু’দেশের বাণিজ্যিক সম্পর্ক দীর্ঘদিনের। ব্রাজিল বাংলাদেশের সাথে বাণিজ্য বৃদ্ধি করতে আগ্রহী। দু’দেশের মধ্যে বাণিজ্যে প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দিতে উভয় দেশের মধ্যে ব্যবসায়ীদের নিয়ে চেম্বার গঠন এবং এফটিএ স্বাক্ষর হওয়া প্রয়োজন। ব্রাজিল বাংলাদেশের সাথে এফটিএ স্বাক্ষর এবং চেম্বার গঠন করতে আগ্রহী।

এ সময় বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব শুভাশীষ বসু ও অতিরিক্ত সচিব(টিও) মো. ওবায়দুল আজম উপস্থিত ছিলেন।