বর্জ্য থেকে ২৫ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন | |

বর্জ্য থেকে ২৫ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের (চসিক) সঙ্গে বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড (পিডিবি) বর্জ্য থেকে ২৫ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্র স্থাপনে সমঝোতা স্মারক (এমওইউ) চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে। আজ রবিবার দুপুরে চসিকের কনফারেন্স হলে এই সমঝোতা চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। চুক্তিপত্রে চসিকের পক্ষে প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সামসুদ্দোহা ও বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড চট্টগ্রাম দক্ষিণ অঞ্চলের প্রধান প্রকৌশলী প্রবীর কুমার সেন স্বাক্ষর করেন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন চসিকের মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন, প্রধান প্রকৌশলী লে. কর্নেল মহিউদ্দীন আহমেদ, সচিব মো. আবুল হোসেন, প্রধান পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা শফিকুল মান্নান সিদ্দিকী, আইপিপির প্রধান প্রকৌশলী মাহবুবুর রহমান, তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী মাসুদুল আলম, প্রকৌশলী রেজাউল করিম, সহকারী প্রকৌশলী ইমাম হোসেন।

চুক্তির শর্ত মতে, চসিক বিনামূল্যে জমি দেবে। প্রতিদিন আড়াই হাজার মেট্রিক টন বর্জ্য থেকে ২৫ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন করা যাবে। বিনামূল্যে বিদ্যুৎ প্ল্যান্টে বর্জ্য পৌঁছে দেবে চসিক। প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করবে পিডিবি। এই প্রতিষ্ঠানটি বিল্ড অন অপারেট এন্ড ট্রান্সফার (বিওওটি) পদ্ধতিতে স্পন্সর ঠিক করবে। বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্রটি গড়ে উঠলে বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় শৃঙ্খলা, পরিবেশ উন্নয়ন এবং নগরবাসী বিদ্যুৎ সমস্যার সমাধান হবে বলে জানা যায়।

অনুষ্ঠানে চসিক মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে এই প্রকল্প বাস্তবায়নের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। প্রকল্পের উৎপাদিত বিদ্যুৎ ক্রয় করবে পিডিবি। চসিক বিনামূল্যে তাদের জায়গা দেবে।’

তিনি বলেন, আবর্জনার সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনা ও ব্যবহার নিশ্চিত করে পরিবেশবান্ধব নগর গড়তে এবং বিদ্যুৎ প্ল্যান্ট স্থাপনে এ উদ্যোগ। এটি স্থাপিত হলে ক্রমবর্ধমান বিদ্যুৎ ঘাটতি দূর হবে। প্ল্যান্টের স্থান নির্ধারণ, টেন্ডার প্রক্রিয়াসহ আরো ২টি চুক্তি স্বাক্ষরের পর বিদ্যুৎ উৎপাদনে যেতে প্রায় ৩ বছর সময় লাগতে পারে।