দু’দিন পর সূচকের সঙ্গে কমেছে লেনদেনও | |

দু’দিন পর সূচকের সঙ্গে কমেছে লেনদেনও

সূচকের নিম্নমুখী প্রবণতায় সপ্তাহের চতুর্থ কার্যদিবস বুধবার (৩১ অক্টোবর) দেশের পুঁজিবাজারে লেনদেন হয়েছে। এদিন সূচকের পাশাপাশি কমেছে বেশির ভাগ কোম্পানির শেয়ারের দাম ও লেনদেন। এর ফলে সোম ও মঙ্গলবার টানা দু’দিন উত্থানের পর পুঁজিবাজারে আবারো দরপতন হলো। তবে তার আগের দিন রোববারও পুঁজিবাজারে বড় দরপতন হয়েছে।

বুধবার(৩১ অক্টোবর) সূচক ওঠানামার মধ্যদিয়ে উভয় বাজারে লেনদেন শুরু হয়ে চলে সোয়া ১১টা পর্যন্ত। এরপর ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতায় লেনেদেন হয় দুপুর পৌনে ১২টা পর্যন্ত। তবে শেয়ার বিক্রির চাপে শুরু হয় সূচক পতন, যা দিনের লেনদেনের শেষ পর্যন্ত অব্যাহত ছিলো। দিন শেষে দেশের প্রধান পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) সূচক কমেছে ১৪ পয়েন্ট। দেশের অপর বাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সূচক ৩৬ পয়েন্ট কমেছে।

ডিএসই-এর তথ্যমতে, বুধবার এ বাজারে ১৪ কোটি ৮৩ লাখ ৮৮ হাজার ১৬৬টি শেয়ারের হাতবদল হয়েছে। এতে লেনদেন হয়েছে ৫১৪ কোটি ৭১ লাখ ৪ হাজার টাকা। এর আগের দিন লেনদেন হয়েছিলো ৫৫২ কোটি ৪৯ লাখ ৭ হাজার টাকা। তার আগের দিন লেনদেন হয়েছিলো ৪৪২ কোটি ৮০ লাখ ৪৭ হাজার টাকার।

এদিন ডিএসই-এর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ১৪ দশমিক ৯৪ পয়েন্ট কমে পাঁচ হাজার ২৮৪ পয়েন্টে অবস্থান নেয়। অন্য দুই সূচকের মধ্যে ডিএসইএস ইনডেক্স ৩ পয়েন্ট কমে অবস্থান নেয় এক হাজার ২২২ পয়েন্টে। এছাড়া ডিএস-৩০ ইনডেক্স ১ পয়েন্ট বেড়ে হয়েছে এক হাজার ৮৭৮ পয়েন্ট। ডিএসইতে লেনদেন হওয়া কোম্পানির মধ্যে দাম বেড়েছে ১১১টির, কমেছে ১৮৯টির ও অপরিবর্তিত রয়েছে ৩৭টি কোম্পানির শেয়ারের দাম।

এদিকে সিএসইতে সার্বিক সূচক ৩৬ পয়েন্ট কমে ১৬ হাজার ১৯১ পয়েন্টে অবস্থান করছে। বাজারে লেনদেন হওয়া কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের মধ্যে দাম বেড়েছে ৮২টির, কমেছে ১৩৩টির এবং ২৪টি কোম্পানির শেয়ার অপরিবর্তিত রয়েছে।

এ বাজারে লেনদেনের পরিমাণ দাঁড়ায় ২০ কোটি ৪২ লাখ ৫২ হাজার টাকা। এর আগের দিন লেনদেন হয়েছিলো ৩০ কোটি ১৯ লাখ ৩ হাজার টাকা।