এখন জিম্বাবুয়ের যে অবস্থা তখন বাংলাদেশের সে অবস্থা ছিল | |

এখন জিম্বাবুয়ের যে অবস্থা তখন বাংলাদেশের সে অবস্থা ছিল

গ্রান্ড ফ্লাওয়ার ভাই অ্যান্ডি ফ্লাওয়ার এবং হিথ স্ট্রিকের যুগে স্বর্ণালি সময় পার করেছে জিম্বাবুয়ে। তাদের বিদায়ের পর ক্রিকেটীয় লড়াই থেকেই ছিটকে গিয়ে রীতিমতো ধুঁকছে জিম্বাবুয়ে ক্রিকেট দল।

সেই সময়ে ভালো ক্রিকেট উপহার দেয়ার জন্য সংগ্রাম করতে হয়েছিল বাংলাদেশ দলকে। সে অবস্থা পার করে টাইগাররা এখন শক্তিশালী প্রতিপক্ষে পরিণত হয়েছে। উল্টো অবস্থা হয়েছে জিম্বাবুয়ের। যে জিম্বাবুয়ে একটা সময়ে বিশ্বকে তাক লাগিয়ে দিয়েছিল, সেই জিম্বাবুয়ে এখন বিশ্বকাপের বাছাই পর্বের বাধাও টকপাতে পারছে না।

সেই সময়ের জিম্বাবুয়ে এবং বাংলাদেশ দলের অবস্থা নিয়ে সম্প্রতিক একটি দৈনিককে জাতীয় দলের সাবেক অধিনায়ক এবং বর্তমান ক্রিকেট দলের নির্বাচক হাবিবুল বাশার সুমন জানিয়েছেন, ‘আমরা যখন শুরু করেছিলাম তখন জিম্বাবুয়ের দলটা খুব ভালো ছিল। ওদের দলে দারুণ সব ক্রিকেটার ছিল। সেই জায়গা থেকে আমরা অনেক উন্নতি করেছি। গত কয়েক বছর ধরে আমরা ভালো ক্রিকেট খেলছি।’

সাম্প্রতিক সময়ে পরাজয়ের বৃত্তে আঁটতে আছে জিম্বাবুয়ে। বাংলাদেশ সফরে এসে দলটির অধিনায়ক হ্যামিল্টন মাসাকদজা জানিয়েছেন বাংলাদেশে খেলে উঠে দাঁড়াতে চান তারা।

এই প্রত্যাশা ব্যক্ত করার ঠিক পরের দিন রোববার মিরপুর শেরেবাংলায় তিন ম্যাচ সিরিজের প্রথমে খেলায় ২৮ রানে পরাজিত জিম্বাবুয়ে ক্রিকেট দল।

আগামীকাল বুধবার চট্টগ্রাম জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে। ম্যাচের ঠিক আগের দিন মঙ্গলবার জিম্বাবুয়ে প্রসঙ্গে বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা বলেন, ‘আমাদের ক্রিকেটে পেশাদারিত্ব শুরুর সময়ে জিম্বাবুয়ে অন্যরকম দল ছিল। কিন্তু আমরা তাদের নিয়ে ওভাবে চিন্তা করছি না। তাদের ছোট করে দেখার কোনো সুযোগ নেই। জিম্বাবুয়ে তাদের সব সিনিয়র খেলোয়াড়ই এসেছে। আমরা জানি তারা তাদের সেরাটা খেললে আমাদের জন্য কঠিন হবে।’

দ্বিতীয় ওয়ানডে জিতলেই সিরিজ নিশ্চিত হবে বাংলাদেশ দলের। সেই লক্ষ্যেই মাঠে নামবে বাংলাদেশ দল। এমনটি জানিয়ে মাশরাফি বলেন, ‘সত্যিকার অর্থে এশিয়া কাপে যে মানসিকতা নিয়ে আমরা খেলতে নেমেছি, সেই মানসিকতা নিয়েই খেলছি, যেন মিসটেক না করি।’