ইসি প্রয়োজন মনে করলে সেনাবাহিনী নামবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী | |

ইসি প্রয়োজন মনে করলে সেনাবাহিনী নামবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেছেন, নির্বাচন কমিশন যদি সেনাবাহিনী নামানোর প্রয়োজন মনে করে তাহলে সেনাবাহিনী নামবে। তবে সেনাবাহিনী চাইতেই হবে এমন কোনো কথা নেই। আমাদের আওয়ামী লীগ কখনো নির্বাচনে সেনাবাহিনী চায়নি।

বৃহস্পতিবার বিকালে নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লার পাগলা এলাকায় পর্যটন কর্পোরেশনের ভাসমান রেস্তরাঁ মেরী অ্যান্ডারসনে নৌ-পুলিশকে পেট্রোলবোট ও জেটি হস্তান্তর অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন।

সেনাবাহিনী প্রসঙ্গে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আরও বলেন, নির্বাচনে পরাজিত হওয়ার যাদের আশঙ্কা থাকে এবং যারা আশঙ্কা করে জনগণ তাদের ভোট দেবে না, তারাই সেনাবাহিনীর স্বপ্ন দেখে।

এর আগে নৌপথে মাদক পাচার নিয়ন্ত্রণে আন্তর্জাতিক সংস্থা ইউনাইটেড নেশন অর্গানাইজেশন ফর ড্রাগ অ্যান্ড ক্রাইমের (ইউএনওডিসি) অর্থায়নে নৌ-পুলিশকে চারটি বোট ও একটি জেটি আনুষ্ঠানিকভাবে হস্তান্তর করেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

অনুষ্ঠানে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জানান, দেশে মাদক, সন্ত্রাস, চাঁদাবাজি ও জঙ্গিবাদের সঙ্গে যে-ই জড়িত থাকুক কাউকে ছাড় দেয়া হবে না।

দেশের অপরাধীদের জন্য অশনিসংকেত অপেক্ষা করছে বলে হুশিয়ারি দিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, অপরাধ করলে তাকে শাস্তি পেতেই হবে।

নৌপুলিশের ডিআইজি মারুফ হাসানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন স্থানীয় সংসদ সদস্য একেএম শামীম ওসমান, পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী, ইউএনওডিসির আঞ্চলিক প্রধান সানাক জয়সুরিয়া, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের সচিব মোস্তফা কামাল উদ্দিন।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে সংসদ সদস্য শামীম ওসমান বলেন, ডক্টর নামের শকুনরা যারা সেনাবাহিনীর মধ্যে বিভেদ সৃষ্টি করে অগণতান্ত্রিকভাবে ক্ষমতায় আসতে চায়, তাদের মোকাবেলা করতে নারায়ণগঞ্জের আওয়ামী লীগ প্রস্তুত আছে।

তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ রাজপথে নামলে রাজপথ কাঁপে। রাজপথ কাঁপানোর জন্য আমরা প্রস্তুত আছি।