পোশাক রপ্তানির পালে হাওয়া লেগেছে | |

পোশাক রপ্তানির পালে হাওয়া লেগেছে

পোশাক শিল্পে গত বছরের তুলনায় এ বছর রপ্তানির পাল্লা বেড়েছে, সেই সাথে প্রবৃদ্ধিও লক্ষ্যমাত্রা অর্জিত হয়েছে। চলতি অর্থবছরের আগস্ট পর্যন্ত পণ্য রপ্তানি হয়েছে ৬৭৯ কোটি ৫০ লাখ ডলারের।

গত অর্থবছরের একই সময় এর পরিমাণ ছিল ৬৬২ কোটি ৮৬ লাখ ডলার। যা গত অর্থবছরের তুলনায় প্রায় ২.৫১ শতাংশ বেশি। এর মধ্যে শুধুমাত্র পোশাক খাতে সর্বোচ্চ ৮৪ শতাংশ রপ্তানি হয়েছে।

মঙ্গলবার (১১ সেপ্টেম্বর) রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরো (ইপিবি) চলতি অর্থবছরের প্রথম ২ মাসে(জুলাই-আগস্ট) রপ্তানি আয়ের হালনাগাদ তথ্য প্রকাশ করেছে।

ইপিবির তথ্যানুযায়ী, প্রথম দুই মাসের মোট পণ্য রপ্তানিতে তৈরি পোশাক রয়েছে ৫৭৩ কোটি ৫১ লাখ ডলার। যা গত চেয়ে ৩.৮২ শতাংশ বেশি। গত রপ্তানি হয়েছিল ৫৫২ কোটি ডলার।

চলতি অর্থবছর পোশাক রপ্তানির লক্ষ্যমাত্রা ৩২৬৮ কোটি ডলার। গত অর্থবছর রপ্তানি হয়েছে ৩০৬১ কোটি ডলারের পোশাক।

এর কারণ হিসেবে পোশাক মালিকদের সংগঠন বিজিএমইএর সভাপতি মো. সিদ্দিকুর রহমান বলেন, আগের মাসে ঈদের ছুটি থাকায় রপ্তানি কম হয়েছিল। ফলে প্রায় ২০ শতাংশ প্রবৃদ্ধি হয়েছিল। ঠিক একই কারণে আগস্টেও রফতানি কমে যায়।

এদিকে পোশাক রফতানিতে প্রবৃদ্ধি থাকলেও দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রফতানি খাত চামড়া ও চামড়াজাত পণ্যের রফতানি ২৬ শতাংশের বেশি কমে গেছে। অর্থবছরের প্রথম দুই মাসে ১৮ কোটি ডলারের চামড়া ও চামড়াজাত পণ্য রফতানি হয়েছে। কিন্তু গত অর্থবছর একই সময়ে রফতানি হয়েছিল ২৪ কোটি ডলারের চামড়া ও চামড়াজাত পণ্য।

জানা যায়, বাণিজ্য মন্ত্রণালয় চলতি ২০১৮-১৯ অর্থবছরের জন্য পণ্য রপ্তানিতে ৩৯০০ কোটি ডলার আয়ের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছে। বিদায়ী ২০১৭-১৮ অর্থবছর রপ্তানি হয়েছিল ৩৬৬৬ কোটি ডলারের পণ্য।