৩৪ রানে ৭ উইকেট নেই বাংলাদেশের

দুই ম্যাচ টেস্ট সিরিজের প্রথমটিতে মুখোমুখি হয়েছে বাংলাদেশ ও ওয়েস্ট ইন্ডিজ। অ্যান্টিগুয়ার স্যার ভিভিয়ান রিচার্ডস স্টেডিয়ামে টস হেরে ব্যাট করছে বাংলাদেশ। ম্যাচটি সরাসরি সম্প্রচার করছে গাজী টিভি, চ্যানেল নাইন ও সনি ইএসপিএন এইচডি।

সংক্ষিপ্ত স্কোর :
বাংলাদেশ : ৩৪/৭ (১৪ ওভার)
উইকেট পতন : ১০-১ তামিম (৪), ১৬-২ মুমিনুল (১), ১৮-৩ মুশফিক (০), ১৮-৪ সাকিব (০), ১৮-৫ মাহমুদউল্লা (০), ৩৪-৬ লিটন (২৫), ৩৪-৭ রনি (৪)।

পঞ্চম শিকার মাহমুদউল্লাহ : নবম ওভারে রোচ তিন-তিনটি উইকেট শিকার করেন। আগের দুটি নিয়েছিলেন দুই ওভারে। নবম ওভারের পঞ্চম বলে তার পঞ্চম শিকারে পরিণত হন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। রোচের বলে উইকেটরক্ষক ডোরিচের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন মাহমুদউল্লাহ। তিনিও ডাক মারেন। দলীয় ১৮ রানেই বাংলাদেশ হারায় তিন-তিনটি উইকেট।

রোচের চতুর্থ শিকার সাকিব : কেমার রোচের চতুর্থ শিকারে পরিণত হয়েছেন সাকিব আল হাসান। নবম ওভারের চতুর্থ বলে জ্যাসন হোল্ডারের হাতে দ্বিতীয় স্লিপে ধরা পড়েন সাকিব। তিনি রানের খাতা খুলতে পারেননি।

রোচের তৃতীয় শিকার মুশফিক : আবার এক ওভার পর ফিরে এসে তৃতীয় উইকেট নিলেন রোচ। তার ‍তৃতীয় শিকারে পরিণত হয়েছেন মুশফিকুর রহিম। দলীয় ১৮ রানের মাথায় রোচের বলে এলবিডব্লিউর শিকার হন তিনি।

রোচের দ্বিতীয় শিকার মুমিনুল : এক ওভার পর ফিরে এসেই মুমিনুল হককে নিজের দ্বিতীয় শিকারে পরিণত করলেন কেমার রোচ। গালিতে শাই হোপের হাতে ধরা পড়েন মুমিনুল। ৩ বল খেলে ১ রান করেন তিনি।

ফিরলেন তামিম : কেমার রোচের করা পঞ্চম ওভারের শেষ বলে আউটসাইড এজ হয়ে উইকেটরক্ষক শেন ডোরিচের হাতে ক্যাচ দিয়ে আউট হন তামিম ইকবাল। ১৩ বল খেলে ৪ রান করেন তিনি।

২০০২ থেকে ২০১৪ পর্যন্ত বাংলাদেশ-ওয়েস্ট ইন্ডিজ ১২টি টেস্টে মুখোমুখি হয়েছে। তার মধ্যে ৮টি টেস্টে জিতেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ২টিতে জিতেছে বাংলাদেশ। অপর দুটি হয়েছে ড্র।

বাংলাদেশের একাদশ : তামিম ইকবাল, লিটন দাস, মুমিনুল হক, মুশফিকুর রহিম, সাকিব আল হাসান, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, নুরুল হাসান সোহান, মেহেদী হাসান মিরাজ, রুবেল হোসেন, আবু জায়েদ ও কামরুল ইসলাম রাব্বি।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের একাদশ : ক্রেইগ ব্রাফেট, ডেভন স্মিথ, কিরেন পাওয়েল, শাই হোপ, রোস্টন চেজ, শেন ডোরিচ, জ্যাসন হোল্ডার, দেবেন্দ্র বিষু, কেমার রোচ, মিগুয়েল কামিন্স ও শ্যানন গ্যাব্রিয়েল।