সৌদিতে গাড়ি চাপায় বাংলাদেশি নিহত

সর্বশেষ ২০১৭ সালের জানুয়ারিতে দেশে এসে পরিবারের লোকজনের সাথে সময় কাটায় জহিরুল হক সেলিম (৪০)। পরিবারের বিভিন্ন কাজ শেষ করে জীবিকার তাগিদে পুণরায় ওই বছরের এপ্রিলে নিজের কর্মস্থলে ফিরে যান তিনি। সব কিছু ঠিক থাকলে কয়েক বছর পর আবার দেশে আসতেন সেলিম। কিন্তু তার এ আশা আর পূরণ হয়নি। কর্মস্থলে যাওয়ার পথে গাড়ি চাপায় নিহত হন তিনি।

স্থানীয় সময় সোমবার (২ জুলাই) বিকেল ৪টার দিকে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। নিহত জহিরুল হক সেলিম নোয়াখালীর সেনবাগ উপজেলার কাদরা ইউনিয়নে জামালপুর গ্রামের ফজল হাজী বাড়ির হাজী আব্দুর রশিদের ছেলে। তিন ভাই ও তিন বোনের মধ্যে তিনি সবার বড়। তিনি দুই সন্তানের জনক ছিলেন।

নিহতের ছোট ভাই ছায়দুল হক ফরাদ জানান, জীবিকার সন্ধানে ২০০৪ সালে সৌদি আরবের দাম্মামে যান সেলিম। পরে সেখানে একটি কোম্পানীতে কাজ করেন তিনি। প্রতিদিনের ন্যায় সোমবার সকালে কাজে যোগদানের উদ্দেশ্যে দাম্মামে তার বাসায় বের হন সেলিম। পথে গাড়ি চাপায় গুরুত্ব আহত হন তিনি। ঘটনাস্থল থেকে দ্রুত পুলিশ তাকে উদ্ধার করে স্থানীয় একটি হাসপাতালে ভর্তি করেন। পরে বিকেল ৪টার দিকে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

তিনি আরো জানান, বর্তমানে তার ভাইয়ের লাশ সে দেশের পুলিশ হেফাজতে রয়েছে। লাশ দেশে আনার জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণে সরকারের কাছে সার্বিক সহযোগিতা কামনা করেছেন তিনি।