উরুগুয়েকে বিদায় করে সেমিতে ফ্রান্স

একের পর এক চমক দেখিয়েই চলেছে ফ্রান্স। আর্জেন্টিনাকে বিদায় করার পর শুক্রবার ল্যাটিন আমেরিকার আরেক ফুটবল শক্তিধরকে বিদায় করল ফরাসিরা। রাশিয়া বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনাল ম্যাচে এদিন গ্রিজম্যান-পগবারা উরুগুয়েকে ২-০ গোলে হারিয়ে উঠে গেল সেমিফাইনালে। আর কোয়ার্টার ফাইনাল পর্ব থেকেই বিশ্বকাপ মিশন শেষ হলো সুয়ারেজ-কাভানি-গডিনদের। সেমিফাইনালে ব্রাজিল অথবা বেলজিয়ামকে পাবে ফ্রান্স। এবারের বিশ্বকাপে ফ্রান্স প্রথম দল হিসাবে শেষ চার নিশ্চিত করল।

ফ্রান্স এবার ষষ্ঠবারের মতো বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে উঠল। সর্বশেষ তারা সেমিফাইনালে উঠেছিল ২০০৬ সালে। সেবার তারা রানার আপ হয়েছিল। বিশ্বকাপে ফ্রান্স এখন পর্যন্ত একবার শিরোপা জিতেছে। ১৯৯৮ সালের বিশ্বকাপে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল ফরাসিরা। অন্যদিকে, উরুগুয়ে বিশ্বকাপে এখন পর্যন্ত দুইবার চ্যাম্পিয়ন হয়েছে।

নিঝনি নোভগোরদে অনুষ্ঠিত ম্যাচটিতে এদিন বল দখলের লড়াইয়ে উরুগুয়ের চেয়ে অনেক এগিয়ে ছিল ফ্রান্স। তবে, বল দখলের লড়াইয়ে পিছিয়ে থাকলেও উরুগুয়ে বারবার আক্রমণে গিয়েছে। কিন্তু ভাগ্য হয়তো তাদের সহায় ছিল না। ম্যাচে ৬১ শতাংশ সময় ধরে বল দখলে রেখেছিল ফ্রান্স। আর ৩৯ শতাংশ সময় ধরে বল দখলে রেখেছিল উরুগেুয়ে। ফ্রান্স লক্ষ্যে শট নিয়েছে দুইটি। উরুগুয়ে লক্ষ্যে শট নিয়েছে চারটি।

ম্যাচের ১৫তম মিনিটে এগিয়ে যেতে পারতো ফ্রান্স। কিন্তু এমবাপ্পের হেডে বল ক্রসবারের সামান্য উপর দিয়ে চলে যায়। ৩৫তম মিনিটে উরুগুয়ের সামনেও দারুণ একটি সুযোগ এসেছিল। কিন্তু ভেসিনোর শটটি ঠেকিয়ে দেন গোলরক্ষক লরিস।

৪০তম মিনিটে ১-০ গোলে এগিয়ে যায় ফ্রান্স। গোলটি করেন রাফায়েল ভারানে। ডি-বক্সের কাছাকাছি জায়গায় ফ্রি-কিক পায় ফ্রান্স। ফ্রি-কিকটি নেন অ্যান্তোনি গ্রিজম্যান। ডি-বক্সের মধ্যে থেকে হেড করে বল জালে পাঠিয়ে দেন রাফায়েল ভারানে।

৪৪তম মিনিটে ১-১ সমতা আনতে পারতো উরুগুয়ে। ক্যাকেরেসর দুর্দান্ত হেডে বল জাল খুঁজে পেতে চলেছিল। কিন্তু ফরাসি গোলরক্ষক হুগো লসির ডান দিকে ডাইল দিয়ে ফ্রান্সকে গোল হজম করার হাত থেকে রক্ষা করেন। ১-০ গোলে এগিয়ে থেকে বিরতিতে যায় ফ্রান্স।

বিরতির পর অ্যান্তোনি গ্রিজম্যানের গোলে ২-০ ব্যবধানে এগিয়ে যায় ফ্রান্স। ৬১তম মিনিটে ডি-বক্সের বাইরে থেকে জোরালো শট নেন গ্রিজম্যান। বলটি ঠেকানোর চেষ্টা করেছিলে উরুগুয়ের গোলরক্ষক। কিন্তু বলটি তার হাত পিছলে চলে যায় জালে। ম্যাচের বাকি সময়ে কোনো গোল না হওয়ায় ২-০ ব্যবধানে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে ফ্রান্স।

‘সি’ গ্রুপ থেকে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে নকআউট পর্বে উঠেছিল ফ্রান্স। দ্বিতীয় রাউন্ডের ম্যাচে তারা আর্জেন্টিনাকে পরাজিত করে কোয়ার্টার ফাইনালে ওঠে। আজ তারা সেমিফাইনালে উঠে গেল। অন্যদিকে, ‘এ’ গ্রুপ থেকে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে নকআউট পর্বে উঠেছিল উরুগুয়ে। দ্বিতীয় রাউন্ডের ম্যাচে তারা পর্তুগালের বিপক্ষে জয় পেয়েছিল।