মীরসরাইয়ে পৃথক দুর্ঘটনায় নিহত ৩

মীরসরাইয়ে শিল্প জোনে কাজ করতে গিয়ে লোহার আঘাতে এক নির্মাণশ্রমিক নিহত হয়েছেন। এছাড়া একই দিন পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় দুজন নিহত হয়েছেন। মঙ্গলবার এসব দুর্ঘটনা ঘটে।

মঙ্গলবার সকাল ১০টার দিকে উপজেলার অর্থনৈতিক জোন এলাকায় নির্মাণকাজ চলাকালীন একটি দুর্ঘটনা ঘটে। এ সময় ময়মনসিংহ জেলার তারাকান্দা থানার অনন্তপুর গ্রামের হাকিম উদ্দিনের ছেলে নির্মাণশ্রমিক মো. আকরাম (২০) ঘটনাস্থলেই নিহত হন।

নিহতের সহকর্মী তাহের জানান, প্রতিদিনের মতো আকরাম শিল্প জোন এলাকায় চট্টলা বোরিং অ্যান্ড কন্সট্রাকশনের পাইলিংয়ের কাজ করছিল। এ সময় ভারি লোহার আঘাতে ঘাড় ও মাথায় জখম হয়। পরে সহকর্মীরা উদ্ধার করে মীরসরাই মাতৃকা হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

এ বিষয়ে চট্টলা বোরিং অ্যান্ড কন্সট্রাকশনের ব্যবস্থাপক রবিউল হোসেন বলেন, নিহত শ্রমিক তাদের কন্সট্রাকশনের আওতায় পাইলিংয়ের কাজ করছিল। এ সময় লোহার আঘাতে তিনি জখম হয়। হাসপাতালে আনলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

এ বিষয়ে জোরারগঞ্জ থানার এসআই দীনেশ দাশগুপ্ত বলেন, ময়নাতদন্তের জন্য লাশ চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

একই দিন ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের বড়তাকিয়া চক্ষু হাসপাতালের সামনে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হয় সাজেদা বেগম (৪২) নামের এক পথচারী। নিহত সাজেদা মধ্যম ওয়াহেদপুর এলাকার মালু বাড়ির আকতার হোসেনের স্ত্রী। খবর পেয়ে জোরারগঞ্জ হাইওয়ে পুলিশ ভোরে লাশ উদ্ধার করে ফাঁড়িতে নিয়ে যায়।

এদিকে ওই মহাসড়কের নিজামপুরে কাভার্ডভ্যানের ধাক্কায় ঘটনাস্থলে অপর এক অজ্ঞাত নারী নিহত হয়। সকাল ৮টায় নিজামপুর পুলিশ তদন্তকেন্দ্রের সামনে এই দুর্ঘটনা ঘটে।

অজ্ঞাত লাশের বিষয়ে জোরারগঞ্জ হাইওয়ে পুলিশের ইনচার্জ সোহেল সরকার বলেন, মহাসড়কের পাশ থেকে এক নারীর লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। ওই নারীর পরিচয় জানা যায়নি।