এবার বাস-ট্রাক সংঘর্ষে হাত হারালো হেলপার হৃদয়

গোপালগঞ্জে বাস ট্রাক সংঘর্ষে দেহ থেকে হাত বিচ্ছিন্ন হয়ে গেল বাস শ্রমিক হৃদয় মিনার (৩০)।

মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১১টার দিকে ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার বেদগ্রাম নামক স্থানে এ মর্মান্তি ঘটনাটি ঘটে।

হৃদয়কে মুমুর্ষ অবস্থায় ঢাকা পাঠানো হয়েছে। সে টুঙ্গিপাড়া এক্সপ্রেসের চালকের সহকারী (হেল্পার)। সে সদর উপজেলার কাড়ারগাতী গ্রামের রবিউল মিনার ছেলে।

টুঙ্গিপাড়া এক্সপ্রেসের যাত্রী প্রত্যক্ষদর্শী ঢাকা ইডেন কলেজের অনার্স শেষ বর্ষের ছাত্রী রাহিমা মনি জানান, পিরোজপুর থেকে ছেড়ে আসা ঢাকাগামী টুঙ্গিপাড়া এক্সপ্রেসের বাসের একেবারে পিছনের ডান পাশের ছিটে বসে ছিলেন হৃদয়। বাসটি বেদগ্রাম পৌঁছালে অপরদিক থেকে আসা একটি ট্রাক পাশ কাটিয়ে যাওয়ার সময় বাস ও ট্রাকের পেছনের অংশে সংঘর্ষ হয়। ঘটনাস্থলেই হৃদয়ের বাহু থেকে ডান হাতটি বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। পরে সংকটজনক অবস্থায় তাকে গোপালগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে আনা হয়। সেখানে তার অবস্থার অবনতি হলে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে ঢাকা পাঠান হয়।

ওই শিক্ষার্থী অভিযোগ করে বলেন, ট্রাকটি বেপরোয়া গতিতে বাসটিকে অতিক্রম করার সময় বাসের পেছনের অংশে সজোরে আঘাত করে। ট্রাক চালকের ভুলেই বাস শ্রমিকের হাতটি বিচ্ছিন্ন হয়েছে।

হৃদয়ের বাবা রবিউল মিনা জানান, রবিউল টুঙ্গিপাড়া এক্সপ্রেসের চালকের সহকারী। সে টুঙ্গিপাড়া এক্সপ্রেসের অন্য একটি গাড়ীতে ডিউটি করে। দুর্ঘটনা কবলিত বাসে করে হৃদয় ঢাকা যাচ্ছিল। ট্রাকটি আটকের জন্য অভিযান চলছে বলে জানিয়েছেন গোপালগঞ্জ সদর থানার অফিসার্স ইনচার্জ মো: মনিরুল ইসলাম।

উল্লেখ্যে, এর আগে রাজধানীর কাওরান বাজারে দুই বাসের রেষারেষিতে হাত হারান সরকারি তিতুমীর কলেজের ছাত্র রাজীব।