সায়েদাবাদে চাপ নেই ঈদে ঘরমুখো মানুষের | |

সায়েদাবাদে চাপ নেই ঈদে ঘরমুখো মানুষের

যাত্রীর চাপ বা উপচে পড়া ভিড় নেই সায়েদাবাদ বাস টার্মিনালে। টিকিট বা যানবাহনেরও সংকট নেই। পাশাপাশি রাস্তার অবস্থাও স্বাভাবিক বলে পরিবহনের লোকজন ও যাত্রীরা জানিয়েছেন।

বুধবার (১৩ জুন) সকালে সরেজমিনে সায়েদাবাদ বাস টার্মিনাল ঘুরে এই চিত্রই দেখা যায়। সকাল ৮টার দিকে টার্মিনালে গিয়ে দেখা যায় যাত্রীর ভিড় অনেকটাই স্বাভাবিক। ঈদের আগে টার্মিনালগুলোতে ঘরমুখো মানুষের যে ধরনের ভিড় ও ছোটাছুটি পড়ে সে রকম কোনো পরিস্থিতি নেই। যাত্রীরা কাউন্টারে এসে টিকিট নিতে পারছেন। বাস ভাড়াও স্বাভাবিক রয়েছে বলে যাত্রীরা জানান।

দূরপাল্লার বাসগুলো নির্ধারিত সময়েই ছেড়ে যেতে পারছে। রাস্তায় তেমন একটা যানজটও নেই।

এই টার্মিনালের বিভিন্ন পরিবহনের কাউন্টারের দায়িত্বে থাকা লোকজনের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, পরিবহনের গাড়িগুলো যথা সময়ে টার্মিনালে আসতে পারছে। এ কারণে নির্ধারিত সময়েই আবার ছেড়ে যাওয়া সম্ভব হচ্ছে। রাস্তায় বিভিন্নস্থানে যে ধরনের যানজট হয়, সেটা হচ্ছে না। আর যাত্রীর চাপও তেমন একটা নেই বলে তারা জানান।

সায়েদাবাদ টার্মিনালে শ্যামলী ১২নম্বর কাউন্টারের ম্যানেজার তানজিম বলেন, যাত্রী আছে আমাদের। পর্যাপ্ত গাড়িও আছে। এ কারণে খুব একটা সমস্যা হচ্ছে না। যাত্রী আসলে টিকিট পাচ্ছেন। রাস্তায়ও খুব একটা যানজট নেই।

সিলেট-চট্টগ্রাম রুটের গাড়িগুলো নির্ধারিত সময়েই টার্মিনালে পৌঁছাতে পারছে বলে জানান তিনি।

ভাড়া প্রসঙ্গে তিনি বলেন, সরকার থেকে যে তালিকা দেওয়া হয়েছে, তাতে ৪ থেকে ৫ টাকা বেশি হয়, আমরা সেটা নিচ্ছি না। আগের ভাড়াই নিচ্ছি। ঢাকা থেকে সিলেটের ভাড়া ৪৭০ টাকা, সরকারি তালিকায় এই ভাড়া ৪৭৩ টাকা করা হয়েছে। আমরা ৩ টাকা কমই নিচ্ছি, যাত্রীরা তো ৩ টাকা দিতে চায় না।

এই টার্মিনালের হানিফ পরিবহনের কাউন্টার মাস্টার মোতালেব বলেন, ঈদের সময় যে উপচে পড়া ভিড় হয়, এবার সেই রকম নেই। সব পরিবহনেই অনেক গাড়ি নামানো হয়েছে। সে কারণে টিকিটের সংকট হচ্ছে না। রাস্তায় যানজটও কম আছে।

একই রকম অবস্থার কথা জানালেন গ্রীন লাইন পরিবহনের ম্যানেজার আব্দুল্লাহ আল মামুন। তিনি বলেন, রাস্তার অবস্থা এখন ভালো, যানজট নেই। যাত্রীর ভিড় খুব বেশি নেই। বৃহস্পতিবার (১৪ জুন) ভিড় হতে পারে। তবে কোনো সমস্যা হবে না মনে হচ্ছে।
টিকিটের দাম আগে যেটা ছিল, সেটাই আছে। দাম বাড়ানো হয়নি বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

এখানে কথা হয় সিলেটের যাত্রী ফয়েজউদ্দিনের সঙ্গে। তিনি বলেন, টিকিট পেতে কোনো সমস্যা হচ্ছে না। ভাড়া আগেরটাই আছে। রাস্তায় কোনো সমস্যা নেই জানতে পেরেছি।

গোপালগঞ্জের যাত্রী জাকারিয়া জানালেন, তিনি কাউন্টারে এসেই টিকিট পেয়েছেন। কোনো সমস্যা হয়নি। এছাড়া বাসের ভাড়া বাড়েনি, আগেরটাই আছে।