দেশে ফিরছেন জোবাইদা, লন্ডন গেলেন কোকোর স্ত্রী | |

দেশে ফিরছেন জোবাইদা, লন্ডন গেলেন কোকোর স্ত্রী

দলের চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার কারাবরণের পর থেকে বিএনপির রাজনীতিতে চলছে নানা গুঞ্জন।

দলীয় সূত্র মতে, বর্তমান সময়ে বিএনপি একটি কঠিন সংকটকালীন সময়ের মধ্য দিয়ে অতিক্রম করছে। দল সৃষ্টির পর থেকে এরকম সংকটের আর কখনও পরেনি। বেগম খালেদা জিয়ার কারাবরণের পর থেকে দলের মধ্যে দেখা দিয়েছে একটি অস্থিরতা।

দলের চেয়ারপারসন কারাগারে ও সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান মামলার জালে দেশের বাইরে থাকায় কেউ কেউ মনে করছেন, দলের এই ক্রান্তিকালে দলের নেতৃত্বে জোবাইদা রহমানের আসা উচিত।

এদিকে বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার ছোট ছেলে আরাফাত রহমান কোকোর স্ত্রী শর্মিলা রহমান সিঁথি এবং দুই মেয়ে জাফিয়া রহমন ও জাহিয়া রহমান লন্ডন ফিরে যাচ্ছেন। রবিবার সকাল সাড়ে ৮টার ফ্লাইটে তারা বাংলাদেশ ছাড়েন। গত ২৯ মার্চ খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করতে লন্ডন থেকে বাংলাদেশে আসেন কোকোর স্ত্রী এবং দুই মেয়ে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক দলের সিনিয়র ও দায়িত্বশীল এক নেতা বলেন, একটা সমাজে ভালো-মন্দ দুটোই আছে। এই মুহূর্তে বিএনপির খারাপ সময় যাচ্ছে। তবে এতে হতাশার কিছু নেই। আকাশে মেঘ চিরকাল থাকে না। মেঘ শেষে আবারো সূর্যের দেখা মেলে। বিএনপিও আজ হয়তো অন্ধকারে আছে কিন্তু সময় হলে নিশ্চয় আলোর দেখা পাবে।

বর্তমান পরিস্থিতিতে জোবাইদা রহমানের দেশে ফেরার বিষয়টি কতটুকু সত্যি জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমরা মনে করি না এই মুহূর্তের নেতৃত্বের জন্য জোবাইদা রহমানকে দেশে আসতে হবে। তবে জোবাইদা রহমান যেহেতু জিয়া পরিবারের একজন অন্যতম সদস্য তাই সে তার শাশুড়িকে দেখতে আসতেই পারে।

দলটির ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু বলেন, জোবায়দা রহমান তো আমাদের সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যানের স্ত্রী। তাই আমরা মনে করি তিনি যেকোনো সময়, যেকোনো প্রয়োজনে দেশে আসতেই পারেন।

বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা জয়নুল আবদিন ফারুক বলেন, জোবাইদা রহমান তো জিয়া পরিবারেরই একজন সদস্য। তিনি তো বাংলাদেশেরই নাগরিক। প্রয়োজনে তিনি যেকোনো সময়ই দেশে আসতে পারেন। আর তার রাজনীতিতে আসার বিষয়টি নিয়ে সিদ্ধান্ত নেবে তার পরিবার। দলীয় প্রয়োজনে তিনি রাজনীতিতে আসতে চাইলে আমরা তাকে স্বাগতম জানাবো।