চাঞ্চল্যকর গোলাপ হত্যা মামলায় ৬ জনের যাবজ্জীবন | |

চাঞ্চল্যকর গোলাপ হত্যা মামলায় ৬ জনের যাবজ্জীবন

নরসিংদীতে চাঞ্চল্যকর গোলাপ হত্যা মামলায় ছয়জনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে প্রত্যেককে ১০ হাজার টাকা করে অর্থদণ্ড, অনাদায়ে আরও এক বছরের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে।

একই সঙ্গে হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকার অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় মোস্তাফিজুর নামে একজনকে বেকসুর খালাস দেন আদালত।

সোমবার দুপুরে নরসিংদী অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক একেএম মোজাম্মেল হক চৌধুরী এই আদেশ প্রদান করেন।

সাজাপ্রাপ্ত আসামিরা হলো- সদর উপজেলার কুরের পাড় গ্রামের টকি মাহমুদের ছেলে আনোয়ার হোসেন, আবদুল আউয়ালের ছেলে মোশারফ হোসেন, ওমর আলীর ছেলে ফিরোজ মিয়া, আবদুল আউয়ালের ছেলে জুলহাস মিয়া, আমজাত আলীর ছেলে আকবর আলী ও আ. গনি মিয়ারে ছেলে সুন্দর আলী।

আদালত সূত্র জানায়, ২০০৩ সালের ২১ ফেব্রুয়ারি পাঁচদোনা থেকে ওষুধ নিয়ে বাড়ি ফেরার পথে নিখোঁজ হন গোলাপ হোসেন (৩০)। বহু খোঁজাখুঁজি করেও তার কোনো সন্ধান পাওয়া যায়নি। তিন দিন পর পাঁচদোনা এলাকার ব্রহ্মপুত্র নদের তীরে এক ব্যক্তির কাটা হাতের একটি অংশ দেখতে পায় স্থানীয়রা।

এর পাশে কাদামাটিতে পুঁতে রাখা অবস্থায় লাশের কিছু অংশ দেখা যায়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশের মাথাসহ ১০টি টুকরা উদ্ধার করে। পরে গোলাপের বাড়ির লোকজন লাশ শনাক্ত করে। এ ঘটনায় নিহতের বড় ভাই মেহেরপাড়া ইউপি সদস্য মোস্তফা হোসেন বাদী হয়ে সদর মডেল থানায় ১৫ জনের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা দায়ের করেন।

রাষ্ট্রপক্ষের কৌঁসুলি অ্যাডভোকেট অলিউল্লাহ রায়ে সন্তুষ্টি প্রকাশ করে বলেন, ১৫ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে আদালত এ রায় দেন।