গিনেস বুকে নাম উঠাতে ৪ কিলোমিটার সড়ক জুড়ে শিক্ষার্থীদের আলপনা | |

গিনেস বুকে নাম উঠাতে ৪ কিলোমিটার সড়ক জুড়ে শিক্ষার্থীদের আলপনা

বর্ণিল আলপনায় শিক্ষার্থীরা রাঙিয়েছে নান্দাইল কিশোরগঞ্জের ৪ কিলোমিটার মহাসড়ক। শুক্রবার কাক ডাকা ভোর থেকে স্কুল ড্রেস পরিহিত মেয়েরা নান্দাইল- কিশোরগঞ্জ মহাসড়কে শুরু করে আলপনার কাজ। চৈত্রের অসহনীয় করতাপ মাথায় নিয়ে ৪ কিলোমিটার দৈর্ঘ্য ৩ মিটার প্রস্ত সড়কে বিকেল সাড়ে ৩টা পযন্ত বিরামহীন বর্ণিল আলপনা এঁকেছে শিক্ষার্থীরা।

পহেলা বৈশাখ উপলক্ষে ময়মনসিংহের নান্দাইল পাইলট উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ের উদ্যমী শিক্ষার্থীরা গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ড করার জন্যে তাদের এই আয়োজন। এ বিদ্যালয়ের ‘ঘাস ফড়িং’ নামে একটি সংগঠন বাল্য বিবাহ রোধে ও আলো ছড়িয়েছে সারাদেশে।

আলপনার রং দিয়ে সহযোগিতা করে আরএফএল রেইনবো গ্রুপ। শুক্রবার ভোর ৬ টায় চার কিলোমিটার দীর্ঘ আলপনার উদ্বোধন করেন স্থানীয় সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আবেদনী খান তুহিন। এসময় সঙ্গে ছিলেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. হাফিজুর রহমান, পৌর সভার মেয়র রফিক উদ্দিন ভুঁইয়া প্রমুখ। চার কিলোমিটার দীর্ঘ আলনায় আঁকতে ৪০ টি গ্রুপে বিভক্ত হয়ে ৪০০ শিক্ষার্থী এতে অংশ নেয়।

নান্দাইল পাইলট উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ছাত্রী দীপানিকা দ্বিপ্ত, বাংলাদেশ খবরকে বলেন, গিনেস বুকে নাম উঠাতেই আমাদের এই উদ্যোগ।

বেশ কয়েকজন শিক্ষার্থী বলেন এত বড় একটি কাজ সফল ভাবে করতে পেরে আমরা আনন্দিত ও উল্লাসিত। আমরা বিশ^াস করি আমাদের স্কুলের নাম গিনেস বুকে অবশ্যই উঠবে।

গিনেস বুকে নাম উঠানোর ব্যপারে জানতে চাইলে স্থানীয় সংসদ আনোয়ারুল আবেদিন খান তুহিন বলেন, প্রধান শিক্ষক বিষয়টি আমাকে অবহিত করলে আমি আরএফএল রেইনবো গ্রুপের সঙ্গে কথা বলে রংয়ের ব্যবস্থা করে দেই। গিনেস বুক অব ওয়াল্ড রেকর্ড কর্তপক্ষের সাথে যোগাযোগ করে মেয়েদের স্বপ্ন অবশ্যই পুরণ করা হবে।