কালবৈশাখী, শিলাবৃষ্টির সতর্কতা আবহাওয়াবিদের | |

কালবৈশাখী, শিলাবৃষ্টির সতর্কতা আবহাওয়াবিদের

আগামী তিন থেকে চার দিন দেশের বিভিন্ন এলাকায় কালবৈশাখী ঝড়ের প্রবণতা বেশি থাকবে বলে সতর্ক করেছেন একজন আবহাওয়াবিদ। সেই সঙ্গে থাকবে শিলাবৃষ্টি।

সারাদেশেই ঝড়ের এই প্রবণতা থাকবে। তবে সিলেট, ময়মনসিংহ, ঢাকায় বেশি হবে।

মঙ্গলবার দুপুরের পর রাজধানী ঢাকার আকাশ হঠাৎ অন্ধকারাচ্ছন্ন হয়ে যায়, শুরু হয় বৃষ্টি। তাল মিলিয়ে চলে বিজলী।

ভ্যাপসা গরমের পর এই বৃষ্টি এক দিন দিয়ে স্বস্তিই নিয়ে এসেছে নগরে। তবে পথে যারা, তাদের আবার ঘটে ছন্দপতন। হঠাৎ বৃষ্টিতে বিপাকে পড়েন কর্মমুখী হাজারো মানুষ। বিভিন্ন স্থানে যান চলাচলে ধীরগতি নেমে আসে।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের আবহাওয়াবিদ আব্দুর রহমান বলেন, দেশের সিলেট, ময়মনসিংহ, ঢাকাসহ সারাদেশেই আগামী তিন চার দিন কালবৈশাখী ঝড়ের প্রবণতা বেশি থাকবে। সেই সঙ্গে শিলাবৃষ্টির সম্ভাবনাও রয়েছে দেশের কোথাও কোথাও।

‘সাধারণত এপ্রিল মাস কালবৈশাখীর সময়, এ সময় চলমান বৃষ্টি হবে না। সময়টায় তাপমাত্রা বেশি থাকে, এজন্য হঠাৎ করেই সেলফ ডেভেলপ করে কালবৈশাখীর সৃষ্টি করে।’

গত বছর এ সময় প্রচুর পরিমাণ বৃষ্টি হয়েছিল, এ বছর তেমন বৃষ্টি নেই এটা কেন?- এমন প্রশ্নে আব্দুর রহমান বলেন, ‘প্রতিবছর কিন্তু এক রকম বৃষ্টি হয় না, সিজন চেঞ্জ হয়। গতবছর এ সময় বেশি বৃষ্টি হয়ে ছিল। সেই অতিবর্ষণে হাওর অঞ্চলের ফসল তলিয়ে যায়। তবে এবছর এপ্রিলে আরও বৃষ্টিপাত হবে।’

‘এটা কালবৈশাখীর সময়, এখনকার বৃষ্টি মূলত বিকাল সময়টায় বেশি হবে। আগামী তিন-চার দিন এই প্রবণতা একটু বেশি থাকবে।’

আবহাওয়া অধিদপ্তর জানিয়েছে, পশ্চিমা লঘুচাপের বর্ধিতাংশ পশ্চিমবঙ্গ ও তৎসংলগ্ন এলাকা এবং মৌসুমের স্বাভাবিক লঘুচাপ দক্ষিণ বঙ্গোপসাগরে অবস্থান করছে।

সকাল ৯টা থেকে পরবর্তী ২৪ ঘণ্টার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, ময়মনসিংহ ও সিলেট বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় এবং রাজশাহী, রংপুর, ঢাকা, খুলনা, বরিশাল ও চট্টগ্রাম বিভাগের দুই এক জায়গায় বিদ্যুৎ চমকানো, দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি/বজ্র বৃষ্টি হতে পারে। সেই সঙ্গে দেশের কোথাও কোথাও বিক্ষিপ্তভাবে শিলা বৃষ্টি হতে পারে।

রাজশাহী, ঢাকা ও রাঙামাটিসহ খুলনা বিভাগের উপর দিয়ে মৃদু তাপপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে। তবে বৃষ্টিতে সারাদেশে দিনের তাপমাত্রা (১-৩) ডিগ্রি সেলসিয়াস কমতে পারে এবং রাতের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকতে পারে। এই সময়ে বৃষ্টি ও বজ্রসহ বৃষ্টির প্রবণতা অব্যাহত থাকতে পারে।

সন্ধ্যা ৬টায় দেশের অভ্যন্তরীণ নদী বন্দরগুলোর জন্য আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, রংপুর, বগুড়া, টাঙ্গাইল, ময়মনসিংহ, ঢাকা, ফরিদপুর, কুমিল্লা এবং সিলেট অঞ্চলগুলোর উপর দিয়ে পশ্চিম/উত্তর-পশ্চিম দিক থেকে ঘণ্টায় ৪৫-৬০ কিলোমিটার বেগে অস্থায়ীভাবে দমকা/ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। সেই সঙ্গে বৃষ্টি/বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। এসব এলাকার নদী বন্দরগুলোকে ১ নম্বর সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাতের রেকর্ড করা হয়েছে সিরাজগঞ্জের তাড়াশে ১৬ মিলিমিটার। এছাড়া ফরিদপুরে ৯ মিলিমিটার, ময়মনসিংহে ১২ মিলিমিটার।