স্বাস্থ্য রক্ষায় হলুদ-গোলমরিচ | |

স্বাস্থ্য রক্ষায় হলুদ-গোলমরিচ

রান্নায় হলুদ এবং গোলমরিচ অপরিহার্য দু’টি উপাদান। কিন্তু শুধু রান্নায় স্বাদের জন্য নয়, স্বাস্থ্যের ওপরও হলুদ এবং গোলমরিচের প্রভাব অপরিসীম। রান্নায় নিয়মিত হলুদ ও গোলমরিচ থাকলে বিভিন্ন শারীরিক সমস্য থেকে মুক্তি পওয়া যায়। তবে আর দেরি না করে চলুন জেনে নেই স্বাস্থ্য রক্ষায় হলুদ এবং গোলমরিচের বিভিন্ন উপকার সম্পর্কে।

১. অনেক সময় খাওয়া কমিয়ে, ব্যায়াম করেও ওজন নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব হয়না। এক্ষেত্রে প্রতিদিন রান্নায় হলুদ ও গোলমরিচ রাখুন। এই দুই একসঙ্গে শরীরের অতিরিক্ত চর্বি গলাতে সাহায্য করে। মেটাবলিজম বাড়াতে রোজ সকালে খালি পেটে হলুদ, গোলমরিচ এবং আদাবাটা গরম পানিতে মিশিয়ে খেতে পারেন।

২. দীর্ঘদিন ধরে আর্থারাইটিসে কষ্ট পাচ্ছেন? আয়ুর্বেদে আর্থারাইটিসের যন্ত্রণা কমাতে হলুদের ব্যবহারের উল্লেখ রয়েছে। রান্নায় নিয়মিত হলুদ ও গোলমরিচ ব্যবহার করে দেখুন। ফল পাবেন।

৩. হলুদ ও গোলমরিচ একসঙ্গে ক্যানসারের বিরুদ্ধেও লড়তে পারে। হলুদের মধ্যে থাকা কারকিউমিন ক্যানসার সেল ধ্বংস করতে সাহায্য করে। বিশেষ করে স্তন ক্যানসার প্রতিরোধে হলুদের ভূমিকা বিশেষ ভাবে গুরুত্বপূর্ণ।

৪. শরীরের ব্যাথা দূর করতে হলুদের জুড়ি নেই। শরীরকে ভেতর থেকে সারিয়ে তোলে হলুদ। তার সঙ্গে গোলমরিচ যুক্ত করলে আরও তাড়াতাড়ি কাজ দেবে। গোলমরিচের মধ্যে থাকা পাইপারিন কোষকে আরও অ্যাক্টিভ করে তোলে। দীর্ঘদিনের ব্যাথা বা নার্ভ সংক্রান্ত যন্ত্রণাও সারিয়ে দেয় এই দুই মশলা।

৫. দীর্ঘদিন ধরে ডায়াবেটিসে ভুগলে তা শিরা-উপশিরাকে ঘতিগ্রস্ত করে। হলুদ ও গোলমরিচের মধ্যে থাকা কারকিউমিন এবং পাইপারিন শিরা-উপশিরার ওপর চাপ কমাতে সাহায্য করে এবং রক্তের শর্করার পরিমাণ নিয়ন্ত্রণে রাখে।