বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামের আনন্দ অনুষ্ঠানে যাওয়ার পথনকশা | |

বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামের আনন্দ অনুষ্ঠানে যাওয়ার পথনকশা

স্বল্পোন্নত দেশের অবস্থান থেকে উন্নয়নশীল দেশে বাংলাদেশের উত্তরণের যোগ্যতা অর্জন উদযাপনের জন্য আগামীকাল বৃহস্পতিবার রাজধানীর বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে আয়োজিত সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে যাওয়ার জন্য একটি পথনকশা প্রণয়ন করেছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ। দুপুর দুইটা থেকে সন্ধ্যা ছয়টা পর‌্যন্ত সাধারণ যানবাহনকে এসব সড়ক পরিহার করতে পরামর্শ দিয়েছে ডিএমপি।

আজ বুধবার ডিএমপি কমিশনার স্বাক্ষরিত এক অফিস আদেশে এই পথনকশা সরবরাহ করা হয়। এই পথনকশা অনুসরণ করে সবাইকে স্টেডিয়ামে প্রবেশের অনুরোধ জানিয়েছেন ডিএমপির কমিশনার আছাদুজ্জামান।

স্টেডিয়ামের অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

ডিএমপির বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, রাজধানীর নয়টি স্থান থেকে ৫৭টি মন্ত্রণালয়, বিভাগ এবং অধীন দপ্তরগুলোর কর্মকর্তা-কর্মচারী ও সাধারণ জনগণ ব্যানার, ফ্যাস্টুনসহ শোভাযাত্রা নিয়ে স্টেডিয়ামে যোগ দেবেন।

এর আগে সংশ্লিষ্ট সবাই দুপুর দুইটায় ওই নয় স্থানে জমায়েত হবেন। দুপুর দুইটার পর নির্দিষ্ট রুট দিয়ে বিভিন্ন মন্ত্রণালয়, বিভাগের আনন্দ শোভাযাত্রা স্টেডিয়ামে প্রবেশ করবে।

যে ৯ স্থান থেকে শোভাযাত্রা

বাংলা একাডেমির সামনের এলাকায় সমবেত হয়ে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়, সেতু বিভাগ, প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়, অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগ, মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়, পরিকল্পনা বিভাগ, পরিসংখ্যান ও তথ্য ব্যবস্থাপনা বিভাগ, বাস্তবায়ন পরিবীক্ষণ ও মূল্যায়ন বিভাগ, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ, প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় এবং জাতীয় সংসদ সচিবালয়ের সদস্যরা বাংলা একাডেমি-দোয়েল চত্বর-আব্দুল গণি রোড-জিপিও দিয়ে বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামের পশ্চিম গেটে প্রবেশ করবেন।

শিল্পকলা একাডেমি ও মৎস্য ভবনের সামনের এলাকায় সমবেত হয়ে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ, জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়, পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়, প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়, কৃষি মন্ত্রণালয়, বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়, সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগ, সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, খাদ্য মন্ত্রণালয়, বিদ্যুৎ বিভাগ এবং জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিভাগের সদস্যরা শিল্পকলা একাডেমি-মৎস্য ভবন-কদম ফোয়ারা-প্রেসক্লাব-পল্টন-বাইতুল মোকাররম হয়ে বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামের উত্তর গেট (মশাল গেট) দিয়ে প্রবেশ করবেন।

শিশু একাডেমি ও দোয়েল চত্বরের সামনের এলাকায় সমবেত হয়ে মহিলা ও শিশুবিষয়ক মন্ত্রণালয়, পরিবেশ ও বন মন্ত্রণালয়, অর্থ বিভাগ, অভ্যন্তরীণ সম্পদ বিভাগ, আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগ, স্বাস্থ্যসেবা বিভাগ, স্বাস্থ্য শিক্ষা ও পরিবার বিভাগ, জননিরাপত্তা বিভাগ, সুরক্ষা সেবা বিভাগ, গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়, তথ্য মন্ত্রণালয়, বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়, শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়, আইন ও বিচার বিভাগ, লেজিসলেটিভ ও সংসদ বিষয়ক বিভাগ এবং ভূমি মন্ত্রণালয়ের সদস্যরা শিশু একাডেমি-আব্দুল গণি রোড-জিপিও হয়ে বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামের পশ্চিম গেট দিয়ে প্রবেশ করবেন।

সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ও ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনের সামনের এলাকায় সমবেত হয়ে স্থানীয় সরকার বিভাগ, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় বিভাগ, ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগ, ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়, নৌ-পরিবহন মন্ত্রণালয়, সমাজ কল্যাণ মন্ত্রণালয়, পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়, যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়, রেলপথ মন্ত্রণালয়, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয় এবং দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের সদস্যরা সোহরাওয়ার্দী উদ্যান – মৎস ভবন-কদম ফোয়ারা-প্রেসক্লাব- পল্টন হয়ে বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামের উত্তর গেট (মশাল গেট) দিয়ে প্রবেশ করবেন।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় জিমনেশিয়াম মাঠের সামনের এলাকায় সমবেত হয়ে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগ, কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগ এবং শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন দপ্তর, সংস্থাগুলোর সদস্যরা দোয়েল চত্বর-আব্দুল গণি রোড- জিপিও হয়ে বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামের পশ্চিম গেট দিয়ে প্রবেশ করবেন।

নগর ভবন (ঢাকা দক্ষিণ) সমবেত হয়ে ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের সদস্যরা নগর ভবন-গোলাপশাহ মাজার-গুলিস্তান মোড়-রাজউক মোড় হয়ে বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামের পূর্ব গেট দিয়ে প্রবেশ করবেন।

বাংলাদেশ ব্যাংক চত্ত্বর এলাকায় সমবেত হয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকসহ অন্যান্য ব্যাংক ও সংশ্লিষ্ট আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোর সদস্যরা বাংলাদেশ ব্যাংক চত্বর-দৈনিক বাংলা মোড় হয়ে বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামের পূর্ব গেট দিয়ে প্রবেশ করবেন।

রমনা পার্কের দক্ষিণ-পূর্ব অংশে সমবেত হয়ে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের সদস্যরা মৎস্য ভবন-কদম ফোয়ারা-প্রেসক্লাব-পল্টন- বায়তুল মোকাররম হয়ে বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামের উত্তর গেট (মশাল গেইট) দিয়ে প্রবেশ করবেন।

শিল্প ভবন চত্বরে সমবেত হয়ে শিল্প মন্ত্রণালয় এবং আওতাধীন সংস্থাসমূহের সদস্যরা শিল্প ভবন-বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামের পূর্ব গেট দিয়ে প্রবেশ করবেন।

শোভাযাত্রার জন্য সমবেত হওয়া এবং নয়টি স্থান থেকে শোভাযাত্রা নিয়ে স্টেডিয়ামে প্রবেশ করার কারণে আগামীকাল বৃহস্পতিবার দুপুর দুইটা থেকে সন্ধ্যা ছয়টা পর্যন্ত বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়াম এবং চতুর্দিকের বর্ণিত রাস্তাগুলোতে সাধারণ যানবাহন চলাচলে সমস্যা হবে।

যানজট এড়িয়ে নির্বিঘ্নে শোভাযাত্রা গমনের উদ্দেশ্যে এই সময় শাহবাগ, কাকরাইল মসজিদ, নাইটেংগেল, ফকিরাপুল, শাপলা চত্বর, গুলিস্তান, ফুলবাড়িয়া, চানখারপুল, বকশিবাজার, পলাশী, নীলক্ষেত অঞ্চল দিয়ে শোভাযাত্রা এলাকায় গাড়ি প্রবেশ নিয়ন্ত্রণের জন্য ডাইভারশনের প্রয়োজন পড়বে।

নিতান্ত প্রয়োজন ছাড়া সাধারণ মানুষকে গাড়ি নিয়ে শোভাযাত্রা এলাকা এড়িয়ে চলার জন্য পরামর্শ দিয়েছে ডিএমপি।

একই সঙ্গে নিরাপত্তার স্বার্থে শোভাযাত্রায় অংশগ্রহণকারীদের ব্যাকপ্যাক, হ্যান্ডব্যাগ, ভ্যানেটিব্যাগ, সিগারেট লাইটার সঙ্গে না রাখতে অনুরোধ জানানো হয়।